১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আলমডাঙ্গায় নাগরিক কমিটি গঠণের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
আগস্ট ৫, ২০২৩
57
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

আলমডাঙ্গায় নাগরিক কমিটি গঠণের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে । ৪ আগস্ট শুক্রবার আলমডাঙ্গা সরকারি কলেজের হলরুমে এ নাগরিক কমিটি গঠনের লক্ষ্যে সচেতন নাগরিকদের আয়োজনে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।


স্বাগত বক্তব্যে খোঃ হবিবুল করিম চনচল তার স্বাগত বলেন- পৌরসভা আইনে বিদ্যমান সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় আলমডাঙ্গা পৌরসভা। প্রতিষ্ঠার ৩৮ বছর পর সারাদেশ যখন উন্নয়নের অভিযাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে তখনও আমরা বলতে গেলে সেই প্রাথমিক অবস্থাতেই পড়ে আছি। পাশ্ববর্তী কয়েকটি পৌরসভা গঠনের মূল উদ্দেশ্য পূরণে অনেক এগিয়ে গেলেও আমাদের এখনও বর্ষাকালে কাঁদা, শুকনো মৌসুমে ধুলায় মাখামাখি করে চলতে হয়, আজ পর্যন্ত শহরে একটি ডাস্টবিন কিংবা ভ্যান- রিক্সা পার্কিং এর ব্যবস্থা হয়নি। শহরে একের পর বিল্ডিং কোড বিহীন বিল্ডিং স্থাপিত হয়ে সড়কগুলো এত সরু হয়েছে যে আজ গাড়ি, রিক্সা-ভ্যানতো দুরে থাক পায়ে হেঁটে চলার জায়গাটুকুও পাওয়া মুশকিল। ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রম চোখেই পড়ে না, সুন্দরের বদলে ময়লা আবর্জনার স্তুপে শহরটার রঙ জীর্ণ হয়ে বড়ই বিবর্ণ হয়ে পড়েছে। নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে কোন পরিষদই যথাযথ ভূমিকা পালন করতে পারেননি। পারেননি কারণ জবাবদিহিতার অভাব। ফলশ্রুতিতে বেড়েছে নাগরিকগণের একক দাবী অগ্রাহ্য করার দুঃসাহস। নাগরিকগণের সম্মিলিতভাবে দাবী উত্থাপনের অভাবেই আজ আলমডাঙ্গা পৌরসভা সকল দিক থেকে পিছিয়ে রয়েছে।


পৌরসভার বাসিন্দাদের নাগরিক অধিকার সমুন্নত রাখতে, পৌরসভার জনমানুষের আশা- আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটানো, শহর রক্ষার আন্দোলনের অংশ হিসেবে জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, পরিচ্ছন্নতা বাজায় রাখা, ট্র্যাফিক ব্যবস্থাপনা, পরিবেশ সংরক্ষণ, মশা নিধন, সবুজ আলমডাঙ্গা গড়ার চেষ্টা, শহরটাকে অধিক বাসযোগ্য করতে, সর্বোপরি বিল্ডিং কোড অমান্য করে বিল্ডিংয়ের পর বিল্ডিং নির্মাণ করে শহরকে কংক্রিটের জঙ্গলে পরিণত করা রোধ করতে শহর রক্ষার আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়বার অঙ্গিকারে সব পেশাজীবি জনগোষ্ঠীকে একাট্টা করে শহর রক্ষার আন্দোলনে সক্রিয় থাকার প্রত্যয়ে সংগঠিত হতে চলেছে ‘আলমডাঙ্গা নাগরিক কমিটি।"


অন্যান্যের মধ্যে সুচিন্তিত মতামত ও গঠনমূলক উপদেশ প্রদান করে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন, ক্রীড়া সংগঠক মোঃ মনিরুজ্জামান মনি, সাংবাদিক রহমান মুকুল, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠক এমদাদ হোসেন, রাশেদুল ইসলাম, কমিউনিটি সংগঠক বিশ্বজিৎ সাধু খাঁ, মেহেদিজ্জামান মিঠু, ফুটবলার শেখ মনিরুল ইসলাম, ইতালি প্রবাসী রেজাউল কবীর লন্ডন, সাবেক কমিশনার জেহেন আলী সেন্টু, শাহীন রেজা, ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় গোলাম মুক্তাদির বিদ্যুৎ, লিটন মন্ডল, হাবিবুর রহমান বাবুল, সবুজ আহাম্মেদ, আব্দুর রশীদ মন্জু, স্বাধীন, ফাহমিদুর রহমান মুন প্রমূখ।


বক্তারা গুরুত্বের সাথে উল্লেখ করেন, বিভিন্ন বছরে এসএসসি ব্যাচের সদস্য, পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃত্বে থাকা সদস্যবৃন্দ ও বিভিন্ন মহল্লার অরাজনৈতিক ও সমাজসেবার মানসিকতাসম্পন্ন নবীণ-প্রবীণ নাগরিকগণের সমন্বয়ে ৫১ সদস্যের আহবায়ক কমিটি গঠন করা হবে এবং আহবায়ক কমিটির আন্তরিক তৎপরতায় ও নানাবিধ সেবামূলক কর্মসূচী (পরিচ্ছন্নতা অভিযান, বৃক্ষরোপণ, যত্রতত্র পার্কিং বন্ধকরণ, সুনাগরিক সম্মাননা, বিখ্যাত নাগরিকদের সম্মাননা প্রদান প্রভৃতি) দ্বারা উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে সকল স্তরে সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধি করে পরবর্তী ৩ মাস নাগাদ পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠণ করা হবে। পাশাপাশি আলমডাঙ্গার বাইরে দেশে বিদেশে অবস্থানকারী হিতাকাঙ্খিদের ও এলাকার মুরুব্বিজনদের সমন্বয়ে একটি উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হবে। আলমডাঙ্গার বাইরে দেশে বিদেশে অবস্থানকারীরা সমন্বিত এই প্ল্যাটফর্ম তথা এই কমিটির পরিচালনায় আলমডাংগার সব মেধাবী সন্তানেরা এলাকার উন্নয়নে কিংবা শেকড়ের টানে এগিয়ে আসবে, গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ ও প্রয়োজনীয় সহায়তা করবেন বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে এই সংগঠন প্রতিষ্ঠায় উপস্থিত নাগরিকগণের সমর্থন ও সর্বাত্মক অংশগ্রহণের জন্য উদাত্ত আহবান জানানো হয়।


নাগরিক আন্দোলনের মাধ্যমে পৌরসভাকে কাঙ্খিত দায়িত্ব নিতে বাধ্য করতে হবে। পাশাপাশি নাগরিকগণকে সেবকের ভূমিকায় থাকতে, সুনাগরিক হওয়ার চেষ্টার অভ্যাস গড়ে তোলার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram