১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আলমডাঙ্গায় আইপিএল জুয়ায় বাজি হেরে বসতবাড়ি খোয়াতে বসেছেন আলমডাঙ্গার কারিগর রতন পাত্র

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
এপ্রিল ৩০, ২০২৩
56
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

আইপিএল খেলায় বাজি ধরে তিন ভরি সোনার বাজি হেরে বসতবাড়ি খোয়াতে বসেছেন আলমডাঙ্গার এক্সচেঞ্জপাড়ার কারিগর রতন পাত্র। আলমডাঙ্গা সোনারপটির ফেন্সি জুয়েলার্সের মালিক ছিদাম কর্মকার অলংকার বানাতে কারিগর রতন পাররকে পাঁচ ভরি সোনা দেন। তারমধ্যে দুই ভরি সোনার গহনা তৈরি করে মালিককে দিলেও বাকী তিন ভরি সোনা আইপিএল জুয়ায় উড়িয়েছেন রতন পাত্র। হেরে যাওয়া স্বর্ণের মূল্য পরিশোধ করতে না পারায় রতন পাত্রের দেড় শতক জমির বসতবাড়িটি মালিক ছিদাম কর্মকারের নামে বায়নানামা করে দিতে হচ্ছে বলে সালিশ বৈঠকসূত্রে জানা যায়।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গার সোনাপট্টির ফেন্সি জুয়েলার্সের মালিক ছিদাম কর্মকার অলংকার তৈরী করে দিতে তার কারিগর রতন পাত্রকে পাঁচ ভরি স্বর্ণ দেন। রতন পাত্র সেই স্বর্ণ নিয়ে দুই ভরি সোনার গহনা তৈরি করে দেন। বাকী তিন ভরি সোনা নিয়ে চলমান আইপিএল খেলার জুয়ার আসরে বসে। জমজমাট জুয়া খেলায় তিমি তিন ভরি সোনা হেরে যায়। এ ঘটনার পর রতন পাত্র গা- ঢাকা দেয়।

বাজি ধরার ব্যাপারটি জানাজানি হলে জুয়েলার্সের মালিক ছিদাম কর্মকার বিপাকে পড়েন। স্বর্ণ আদায় করতে তিনি গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় সোনাপট্টিতে একটি সালিশ বৈঠক ডাকেন। বৈঠকে অভিযুক্ত রতন পাত্রের বাবা আলমডাঙ্গা শহরের এক্সচেঞ্জপাড়ার কার্ত্তিক পাত্র উপস্থিত হন। দরিদ্র কার্ত্তিকপাত্র ছেলের অপকর্ম মেনে নিয়ে স্বর্ণের মূল্য প্রায় তিন লক্ষ টাকা পরিশোধ করতে দুই বছর সময় চান।

ক্ষতিগ্রস্ত জুয়েলার্সের মালিক ছিদাম কর্মকার দুই বছর সময় মেনে নেন। তবে কার্ত্তিক পাত্রের এক্সচেঞ্জপাড়ার দেড় কাঠার জমির বাড়িটি ছিদাম কর্মকারের নামে স্ট্যাম্পে বায়নানামা করে দিতে বলেন। দুই বছর সময়ের মধ্যে টাকা দিতে ব্যর্থ হলে বাড়িটি ছিদাম কর্মকারের নামে রেজিস্ট্রি করে দেওয়ার শর্তও জুড়ে দেন তিনি। এ বিষয়ে চূড়ান্ত করা হবে আগামিকাল সোমবার সালিশে।

এ ব্যাপারে ফেন্সি জুয়েলার্সের মালিক ছিদাম কর্মকার এক রহস্যজনক কারণে বাজিতে স্বর্ণ হারানো ও টাকা উদ্ধারে বিলম্বিত হওয়ায় বাড়ি লিখে নেওয়ার বিষয়ে কোন তথ্য জানাতে রাজি হননি।

তবে সালিশকারী আলমডাঙ্গা বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন বলেন, সালিশ বৈঠকে সমস্যার সমাধান হয়নি। তিনি অভিযুক্ত রতন পাত্রের বাবা কার্তিক পাত্রের নিরাপত্তার স্বার্থে তার বসতবাড়ির বায়নানামা কোন ব্যক্তির নামে না করে জুয়েলারী মালিক সমিতি অথবা বণিক সমিতির নামে করার কথা বলেন। পরবর্তি বৈঠকে সিদ্ধান্ত এ বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে জানান তিনি।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) খেলাকে কেন্দ্র করে আলমডাঙ্গায় জমজমাট অনলাইন জুয়া। আলমডাঙ্গা শহরের সবচে বেশি আনলাইন জুয়া খেলা হয়ে থাকে সোনারপটিতে। এমন তথ্যই জানিয়েছেন এ পট্টির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি। অভিযোগকারিরা জানান মাঠে খেলে দুই দল। তৃতীয় পক্ষ খেলে মাঠের বাইরে। আইপিএল (ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ) খেলা হয় ভারতে। বাজিতে কোটি কোটি টাকা উড়ে বাংলাদেশে।

খোদ আলমডাঙ্গাতে অনলাইনে বাজিতে লাখ টাকা লগ্নি হয়ে থাকে। একেকটি ম্যাচকে ঘিরে প্রতিদিন বাণিজ্যে নামে জুয়াড়িরা। তাদের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে অনেকেই নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে। শুধু আইপিএল নয়, বিশ্বকাপ ক্রিকেট, ফুটবল, জাতীয় লীগ, ইউরোপ নেশন্স কাপ-উয়েফা, স্পেনিশ লিগ, কোপা আমেরিকা, বিপিএলÍএসব টুর্নামেন্টে বিনোদনের চেয়ে এখন জুয়া খেলায় মত্ত থাকেন জুয়াড়িরা। অনলাইনে বাজি ধরে নিঃস্ব হয়েছেন অনেকেই,রতনের মত হারাচ্ছেন সর্বস্ব।তারপরও দিনদিন জুয়াড়ির সংখ্যা বেড়েই চলেছে। দাবি উঠেছে সর্বগ্রাসী এ অনলাইন জুয়া বন্ধে কঠোর প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণের।

এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার নাথ অনলাইন জুয়া বন্ধে প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণের সদিচ্ছার কথা জানিয়েছেন।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram