২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গা কুড়ুলগাছির আদর্শ কৃষক সমবায় সমিতি লিঃ এর সাবেক সভাপতি ও ম্যানেজার এর বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
সেপ্টেম্বর ৭, ২০২২
46
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি আদর্শ সমবায় কৃষক সমিতির টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সাবেক সভাপতি ও ম্যানেজার এর বিরুদ্ধ। টাকা আত্নসাতের ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন করেছে সমিতির বর্তমান সভাপতি ও ম্যানেজার সোমবার বিকেলে সমিতির কার্যালয়ে।

সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেন বিগত কমিটির সভাপতি সরফরাজ উদ্দীন ও ম্যানেজার আশরাফুল হক (জাকির) এর নিকট থেকে বিগত ইংরেজি ০৫-১১-২০২১ তারিখে সমিতি পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করি। সমিতিতে রক্ষিত বার্তা পত্রে। সমিতির দেনার পরিমাণ ৫৭,৪০,৭০০ ( সাতান্ন লক্ষ চল্লিশ হাজার সাতশত) টাকার মধ্যে বি.আর.ডি.বি হাতে নেওয়া ১৬,৩১,৭০০ (ষোল লক্ষ একত্রিশ হাজার সাতশত) টাকা ও অবশিষ্ট একাধিক ব্যক্তির কাছে থেকে শতকরা ২০% হারে মুনাফা দেবার শর্তে নেওয়া ঋণের পরিমাণ ৪১,০৯,০০০ (একচল্লিশ লক্ষ নয় হাজার) টাকা।

বিশাল ঋণের বোঝা নিয়ে সমিতি পরিচালনা করা একেবারে অসম্ভব। ফলে আমরা বিশেষ সাধারন সভার আয়োজন করি এবং সভায় দায়-দেনার বাস্তব অবস্থা সম্পর্কে সকল সদস্যদেরকে অবহিত করি।

সভায় সিদ্ধান্ত হয় যে, এই বিশাল পরিমাণের দেনা কিভাবে হলো তা খাতা পত্র খতিয়ে দেখে যারা এই দেনা করেছে তাদের কাছ থেকে টাকা ফেরত নিয়ে দেনা পরিশোধ করতে হবে। কারণ নিয়ম অনুযায়ী সেচ কাজ চালানোর জন্য যত টাকা খরচ হয়েছিল ফসল কাটার সময় বিঘা প্রতি সেচ রেট নির্ধারন করেই তত টাকা সেচ খরচা আদায় করেছিলো। তাহলে এতো টাকা সমিতির দেনা হবে কেনো? এবং এই দেনা তাদেরকেই বহন করতে হবে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বর্তমান কমিটি খাতাপত্র খতিয়ে দেখতে পায় সাবেক কমিটির চেয়ারম্যান সরফরাজ উদ্দীন ও ম্যানেজার আশরাফুল হক জাকির অতিরিক্ত ২৮,৭৭,৭০০ (আঠাশ লক্ষ সাতাত্তর হাজার সাতশত) টাকা কম নিয়েছেন নিয়ম অনুযায়ী যা নেওয়ার প্রয়োজন ছিলো না।

এ ব্যাপারে জনাব সরফরাজ উদ্দীন ও আশরাফুল হক জাকিরকে সমিতির অফিসে ডাকা হয় এবং জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় যে, এই ঋণের টাকা কেন নিলেন এবং কোন কাজে খরচ করলেন? উত্তরে তারা বললেন অফিস ঘরের ছাদ নির্মাণ ও সদস্যদের মুনাফা বাবদ ১৪,২২,৮৮০ (চৌদ্দ লক্ষ বাইশ হাজার আটশত আশি) টাকা উন্নয়ন কাজে খরচ করেছি। অবশিষ্ট ১৪,৫৪,৮৮০ (চৌদ্দ লক্ষ চুয়ান্ন হাজার আটশত আশি) টাকা কোন কাজে খরচ করেছে জিজ্ঞাসা করলে তার হিসাব দিতে পারেন নাই। বিধায় বর্তমান কমিটি সরফরাজ উদ্দীন ও আশরাফুল হক জাকিরের নিকট উক্ত ১৪,৫৪, ৮৮০(চৌদ্দ লক্ষ চুয়ান্ন হাজার আটশত আশি) টাকা সমিতির তহবিলে ফেরত চাহিয়া বিগত ইংরেজি ০৬-০৭-২০২২ তারিখে নোটিশ প্রদান করে। অদ্যবধি তারা সমিতির তহবিলে টাকা ফেরত দেন নাই।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram