২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের প্রধান কারারক্ষীর প্রহারে পরিচ্ছন্ন কর্মী আহত

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
জুন ২২, ২০২৩
15
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 


চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের প্রধান কারারক্ষীর প্রহারে শ্রী লালন সরদার (৪০) নামের জেলা কারাগারের এক পরিচ্ছন্ন কর্মী আহত।

বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারে এ ঘটনা ঘটে। আহত লালন চুয়াডাঙ্গা হাটকালুগঞ্জ পুলিশ লাইন এলাকার শ্রী পবন সরদারের ছেলে। অভিযুক্ত চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের প্রধান কারারক্ষী রোহিদ হোসেন।

চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের পরিচ্ছন্ন কর্মী শ্রী লালন সরদার। জেলা কারাগারের জেলারের গরু রক্ষণাবেক্ষণ কাজেও নিয়োজিত ছিল পরিচ্ছন্ন কর্মী লালন সরদার। বুধবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের পানির পাম্পের সামনে গরুর দুধ দোওয়াচ্ছিলেন লালন। এ সময় একটা গরুর দড়ি খুলে ওখান থেকে দৌড় দেয়। পরে লালন গরুটিকে ধরে। তখন চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের প্রধান কারারক্ষী রোহিত হোসেন লালন কে বলেন গরুর পা ভেঙ্গে যাবে। এ নিয়ে এই কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে লালন কে লাঠি দিয়ে ও হাত দিয়ে আঘাত করে। লালন আহত হয়। পরে পরিবারের নিকট জানালে পরিবারের সাথে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগে আসেন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক শাপলা খাতুন তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি রাখেন।

আহত লালন বলেন, আমি গরুর দুধ দোওয়াচ্ছিলাম তখন একটি গরু দড়ি খুলে দৌড় দেয়। আমি গরুটি ধরার চেষ্টা করি এবং ধরি। এ সময় প্রধান কারারক্ষী রোহিদ ওস্তাদ আমাকে বলে গরুর পায়ে লাগলো। তখন তার সাথে আমার কথা কাটাকাটি হয়। এর একপর্যায়ে তিনি আমাকে পিটিয়ে আহত করেছেন।

বাংলাদেশ হরিজন মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি শ্রী দয়াল সরদার বলেন, লালনের ওপর যে কারারক্ষী আঘাত করেছে বাংলাদেশ হরিজন মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার পক্ষ থেকে আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই। ওই কারারক্ষীকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।

বাংলাদেশ হরিজন মানবাধিকার ফাউন্ডেশনে চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক শ্রী মনোরঞ্জন মজুমদার বলেন, যারা আইনের রক্ষক তারা যদি ভক্ষক হয়ে এইভাবে সাধারণ মানুষকে আহত করে এটা সামাজিকভাবে লজ্জাজনক ব্যাপার বলে আমি মনে করি। এ বিষয়ে তদন্ত করে একটা উচ্চ পর্যায়ের শাস্তির দাবি করছি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারের জেলার এস এম মহিউদ্দিন হায়দারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি সাড়ে ১২টার সময় ডিউটি জয়েন করেছি। আমি শুনলাম পরিচ্ছন্ন সাথে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে পরিচ্ছন্ন কর্মীকে প্রধান কারা রক্ষী রোহিত আঘাত করেছে। আমি সাথে সাথে প্রধান কারারক্ষী রোহীদের ডিউটি উইথড্র করেছি এবং তাকে বদলি করার জন্য ডিআইজি মহোদয় বরাবর আগামীকাল রিপোর্ট প্রদান করব।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram