১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উপজেলা নির্বাচনে ঘোড়া প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সভায় আনারন প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
মে ১০, ২০২৪
34
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মোমিন চৌধুরী ডাবু নির্বাচন থেকে সরে গিয়ে প্রতিদ্ব›দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানকে সমর্থন দিচ্ছেন বলে জোর গুঞ্জন উঠেছে। বুধবার রাতে আলমডাঙ্গা টকিজ সিনেমা হলে আয়োজিত জিল্লুর রহমাননের নির্বাচনী মতবিনিময় সভায় মোমিন চৌধুরী ডাবুর উপস্থিতি এ গুঞ্জনকে আরও জোরালো করেছে।


মতবিনিময়সভার প্রত্যক্ষদর্শী ও একাধিক ভিডিওতে দেখা যায়, গত সংসদ নির্বাচনে তীব্র প্রতিদ্ব›দ্বীতা গড়ে তোলা প্রার্থী দিলীপ কুমার আগরওয়ালা আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানের ঘোড়া প্রতীকে ভোট চেয়ে বক্তব্য রাখছেন। তাঁর বক্তব্যের মাঝামাঝি সময়ে অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী মোমিন চৌধুরী ডাবু মতবিনিময়সভার মঞ্চে গিয়ে বসেন। তখন থেকেই টকিজ সিনেমা হলজুড়ে উপস্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানের সমর্থকদের মধ্যে কানাঘুষা শুরু হয়। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী জিল্লুর রহমানের নির্বাচনী সভায় অপর প্রার্থী মোমিন চৌধুরী ডাবু কেন উপস্থিত হয়েছেন? তাহলে কি তিনি নির্বাচন থেকে সরে গিয়ে জিল্লুর রহমানকে সমর্থন দিচ্ছেন? গোপনে কি তাদের মধ্যে কোন সমঝোতা হয়ে গেছে? এরকম নানা প্রশ্ন সবার মুখে মুখে ঘুরতে থাকে। কৌতুহলী অনেকেই ভিডিও কিংবা মঞ্চের ছবি তুলে ফেসবুকে আপলোড করতে থাকেন। এ ঘটনায় উপজেলাজুড়ে নতুন করে নির্বাচনী মেরুকরণ করতে থাকেন বাকি প্রার্থীরা এবং ভোটাররা। সবার মধ্যে ধারণা জন্মে নির্বাচন থেকে সরে গিয়ে জিল্লুর রহমানকে সমর্থন দিচ্ছেন মোমিন চৌধুরী ডাবু।


তবে গতকাল দুপুরে ভীন্ন কথা বলতে থাকেন মোমিন চৌধুরী ডাবু। তিনি বলেন, ঘটনার দিন রাত ৮ টার দিকে দিলীপ কুমার আগরওয়ালা মোবাইলে তার সাথে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেন। মূলত এজন্যই টকিজ সিনেমা হলে আয়োজিত মতবিনিময়সভায় তিনি গিয়েছিলেন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর নির্বাচনী মতবিনিময়সভায় এভাবে যাওয়াটা ঠিক হয়নি বলেও জানান তিনি।


তবে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে এখন পর্যন্ত অত্যন্ত সুবিধাজনক অবস্থায় থাকা জিল্লুর রহমান জানান, আলমডাঙ্গার গ্রামে গ্রামে দিলীপ কুমার আগরওয়ালার ব্যক্তিগত লোক রয়েছে। তাঁর একটি সংগঠন রয়েছে। তিনি আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচনে আমার ঘোড়া প্রতীককে জয়ী করতে নিরলসভাবে কাজ করছেন। কাজ করতে গিয়ে তিনি কার কার সাথে কথা বলছেন এটার সবকিছু আমার জানার কথা না।


এ ঘটনার পর থেকে দিলীপ কুমার আগরওয়ালার সাথে একাধিকবার মোবাইলে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি। ফলে মোমিন চৌধুরী ডাবুর সাথে অন্তরালে তাঁর কি কথা হয়েছে তা জানাও সম্ভব হয়নি।


এদিকে,গতকাল সকাল থেকেই উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মমিন চৌধুরী ডাবুকে নিয়ে নানা আলোচনা ডালপালা ছড়াতে থাকে। দিন বাড়ার সাথে সাথে তা সবার মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়ে। চায়ের দোকানগুলোতে প্রধান আলোচ্য বিষয় হয়ে ওঠে মমিন চৌধুরী ডাবু। একেকজন একেক রকমের মন্তব্য করতে থাকেন। কেউ কেউ বলেন,দিলীপ কুমার আগরওয়ালার সাথে ডাবুর গোপনে সমঝোতা হয়ে গেছে। সে কারণেই চেয়ারম্যান প্রার্থী জিল্লুর রহমানের নির্বাচনী সভায় প্রকাশ্যে উপস্থিত ছিলেন মমিন চৌধুরী ডাবু।


উল্লেখ্য,আলমডাঙ্গা উপজেলার কুমারী গ্রামের ছেলে মমিন চৌধুরী ডাবু দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় ব্যবসা করে আসছেন। তিনি ঢাকাতেই বসবাস করেন। ২১ মে অনুষ্ঠিতব্য আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনি প্রার্থী হয়েছেন। তার নির্বাচনী প্রতীক আনারস।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram