২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আলমডাঙ্গা হাউসপুরের হোটেল ব্যবসায়ী ও তার চাচা ভাইকে দিনদুপুরে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক জখম

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
আগস্ট ১৮, ২০২২
23
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

আলমডাঙ্গা বাদেমাজু গ্রামের আব্দুল কাদের রানার বিরুদ্ধে হাউসপুরের হোটেল ব্যবসায়ী মনোয়ার হোসেন বেল্টু ও তার চাচা ভাই রবিউল ইসলামকে দিনদুপুরে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক জখম করার অভিযোগ উঠেছে। এসময় হোটেল ব্যবসায়ীর নিকটে থাকা কয়েক লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে । এ ঘটনায় আব্দুল কাদের রানার ভাই জাফর ইকবাল রাজাকে আটক করেছে থানা পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।


জানাগেছে, উপজেলার ডাউকি ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান ও বাদেমাজু গ্রামের ইউপি সদস্য মকবুল মন্ডলের ছেলে মানোয়ার হোসাইন ওল্টুর সাথে দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের মকলেছুল হকের ছেলে আব্দুল কাদের রানার সাথে বিরোধ চলে আসছিল। বিভিন্ন সময় আব্দুল কাদের রানা ইউপি সদস্যসহ তার ভাইদের মারধরের হুমকি দিয়ে আসছিল। এরই একপর্যায়ে ১৮ আগস্ট বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে ইউপি সদস্য মানোয়ার হোসাইন ওল্টুর ছোট ভাই হোটেল ব্যবসায়ী মনোয়ার হোসেন বেল্টুর হাউসপুরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মন্ডল মিষ্টান্ন ভান্ডারে গিয়ে আব্দুল কাদের রানাসহ কয়েকজন মিলে হামলা চালায়। এসময় হোটেলের সামনে মানোয়ারের চাচাতো ভাই রবিউল ইসলামকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

পরে হোটেল ভিতরে প্রবেশ করে হোটেল ব্যবসায়ী মনোয়ার হোসেনকে তাড়িয়ে ধরে লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। এসময় ব্যবসায়ীর নিকট থাকা কয়েকলাখ টাকাও তারা ছিনিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে। এছাড়াও হোটেলে প্রবেশ করে ভাংচুর করেছে। আহত রবিউল ইসলাম ও মনোয়ার হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় ইউপি সদস্য মানোয়ার হোসাইন ওল্টু বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত আব্দুল কাদের রানার ভাই জাফর ইকবাল রাজাকে গ্রেফতার করেছে।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram