১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সম্মিলিতভাবে আলমডাঙ্গা উপজেলাকে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যাব এমপি ছেলুন

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
জুন ২৪, ২০২৪
31
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 


দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকের সরব উপস্থিতিতে জামজমকপূর্ণ পরিবেশে অভিষেক হলো আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যন কে এম মুঞ্জিলুর রহমান এবং ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় মাসুম বিল্লাহ ও মনিরা খাতুন। রোববার ( ২৩ জুন) বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে এ অনুুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর আগে চুয়াডাঙ্গা ১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন উপজেলা চেয়ারম্যান কেএম মুঞ্জিলুর রহমানকে সাথে নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের অফিসে গিয়ে তাকে চেয়ারে বসান।


মূলত: আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বভার গ্রহণের পর উপজেলা পরিষদের প্রথম মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদের ১ম সভায় সভাপতিত্ব করেন নব নির্বাচিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কেএম মুঞ্জিলুর রহমান। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা ১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন। ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদের ১ম সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্নিগ্ধা দাস।


সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা ১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন বলেন, আমি শুধু এতটুকু বলবো যে আগামী পাঁচটি বছর সমন্বয় করে চলতে হবে। সমন্বয় ছাড়া কোন কাজ হবে না। এখানে বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা আছেন। চেয়ারম্যান ভাইয়েরা আছেন, সাংবাদিক ভাইয়েরা আছেন। এবং বিভিন্নভাবে অনেকে উপস্থিত হয়েছেন অনেক রাজনীতিবিদ আছেন। সকালের উদ্দেশ্যে আমি শুধু একটা কথাই বলবো যে রাগ করবেন না। রাগ না, যুক্তি তর্কের সাথে আপনার কথাটা যুক্তি দিয়ে স্পষ্টভাবে বোঝানোর চেষ্টা করবেন। চিল্লায়ে বা গা গরম করে কোন লাভ হয় না। সুতরাং আপনাদের কাছে আমার সম্মিলিতভাবে একটা আহ্বান থাকবে যে আমাদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান আপনাদের সকলের সহযোগিতা কামনা করছে। আপনারা সকলে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবেন। সম্মিলিতভাবে আলমডাঙ্গা উপজেলাকে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যাব। মানুষ মাত্রই কিন্তু ভুল করে। আপনারা ভুল ত্রুটি ভুলে গিয়ে সকলে একত্রিতভাবে কাজ করার চেষ্টা করবেন। আলমডাঙ্গার প্রতি আমার ভালোবাসা আছে। আমি আমার ভালবাসার জায়গা থেকে যতটুকু সম্ভব আমি করব। আমি পিছনে দিকে তাকাতে চাই না। তবে পিছনে দিনগুলো থেকে শিক্ষা নিতে চাই। গুরুজনরা বলেছেন যে ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে। কিন্তু সত্য কথা বলতে আমি বা আমাদের মধ্যে থেকে কেউ ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয় না। নিজের মনের মত আমরা সকলের চলতে চাই। এটা ঠিক নয়। আপনার কোন কথা থাকলে অফিসের টেবিলে সেটা উপস্থাপন করবেন। গ্রহণযোগ্য হলে সেটা নিয়ে কাজ করা হবে। আপনাদের একটা কথা না বললেই নয়। মনে রাখবেন উপজেলা পরিষদও একটি ছোটখাটো লোকসভা। আপনার মত বা সিদ্ধান্ত আপনার ইউনিয়নের সমস্যা এলাকার সমস্যা সমস্ত বিষয়ে এখানে জানাতে হবে। আপনি এই বিষয়গুলো যদি তুলে ধরেন তাহলে দপ্তরের যত লোকজন আছে সকলে বিষয়টা সম্পর্ক অবগত হলো।


নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান মঞ্জিল হক বলেন, আপনারা আমাকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করেছেন এজন্য আমি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আশা করি ভবিষ্যতেও আমার প্রতি আপনাদের দক্ষিণ হাত প্রসারিত থাকবে। আগামী পাঁচবছর আমি আপনাদের কল্যাণে কাজ করার জন্য সর্বদা চেষ্টা করবো। আমার সাধ্যের শূন্যতা উজাড় করে আপনাদের পাশে থাকতে চায়। উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের সাথে নিয়ে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করবো। আমি আলমডাঙ্গাকে স্মার্ট উপজেলা উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। সেজন্য আপনাদেরও স্মার্ট হতে হবে। চলার পথে কাজের ক্ষেত্রে ভুল হলে সঠিক পরামর্শ দিতে অনুরোধ জানান।
তিনি বলেন, আমি আপনাদের সন্তান হিসেবে সারাজীবন আপনাদের ভালবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই। দলমত নির্বিশেষে সকলের সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই।


বিশেষ অতিথি ছিলেন নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান মাসুম বিল্লাহ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনিরা খাতুন, আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ গনি মিয়া, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শারমিন আক্তার, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুল্লাহিল কাফি, কৃষি কর্মকর্তা রেহেনা পারভিন, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদুজ্জামান লিটু বিশ^াস, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক মাসুদ রানা তুহিন।


উপজেলা রিসোর্চ সেন্টারের ইনস্টেক্টর জামাল হোসেনের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মোজাহিদুর রহমান জোয়ার্দ্দার লোটাস, আশিকুজ্জমান ওল্টু, আবু সাঈদ পিন্টু, মাহমুদুল হাসান চঞ্চল, তরিকুল ইসলাম, এজাজ ইমতিয়াজ বিপুল জোয়ার্দ্দার, সোহানুর রহমান, আলহাজ¦ শেখ আশাদুল হক মিকা, মকলেছুর রহমান শিলন, তাফসির আহমেদ মল্লিক লাল, ইমদাদুল হক মুন্সি, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু মুছা, সাধারন সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, আলমডাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহসভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ¦ লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক সাইফুর রহমান পিন্টু, উপজেলা প্রকৌশলী তাওহীদ আহমেদ, উপজেলা পরিবার পবিকল্পনা কর্মকর্তা এ এফ মাহমুদ শাহারিয়ার, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জিয়াউল হক, উপজেলা শিক্ষা অফিসার ভারপ্রাপ্ত শামীম সুলতান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক, সমাজ সেবা কর্মকর্তা নাজমুল হোসেন, আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আজিজুল হাকিম, খাদ্য নিয়ন্ত্রন আব্দুল হামিদ, বিআরডিবি কর্মকর্তা শায়লা শারমিন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাখছুরা জান্নাত, পল্লি সঞ্চয় ব্যাংক ব্যবস্থাপক শেফালি বেগম, তথ্য কর্মকর্তা স্নিগ্ধা দাস প্রমুখ।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram