১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চির নিদ্রায় শায়িত হলেন আলমডাঙ্গার কৃতি সন্তান ঢাকার স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ ) আহসান হাবীব শাহীন

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২৩
122
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

সকলের অনিরুদ্ধ ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে আলমডাঙ্গার দারুস সালাম কবরস্থানে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন চুয়াডাঙ্গা-আলমডাঙ্গার কৃতি সন্তান ঢাকার স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ ) আহসান হাবীব শাহীন। গতকাল ১৭ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় দারুস সালামের জনাকীর্ণ ঈদগাহ ময়দানে জানাযা শেষে লাশ দাফন করা হয়েছে।

দেশের বিভিন্ন জেলার জেলা ও দায়রা জজ জানাযায় উপস্থিত ছিলেন। চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ মোঃ জিয়া হায়দার, সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ চাঁদ মোহাম্মদ আব্দুল আলীম আল রাজী, ঝিনাইদাহ সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোঃ নাজিমুদ্দৌলা, কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ শেখ আবু তাহের, মাগুরার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ অমিত কুমার দে, মেহেরপুর জেলা ও দায়রা জজ মোঃ শহিদুল্লাহসহ তাঁদের সহকর্মিরা উপস্থিত ছিলেন। পরে বিকেলে যশোর সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক তাঁর সহকর্মিদের নিয়ে আলমডাঙ্গায় পৌছায়। তাঁরা মরহুম আহসান হাবীব শাহিনের কবর জিয়ারত শেষে তার পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান।

স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু, রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুল আলীম বাবু, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. আব্দুল রশীদ মোল্লা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহমেদ ডন, মরহুমের পিতা আব্দুর রশিদ, বড় ভাই ফজলুল হক শামীম, ছোট ভাই মাহফুজসহ রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, ব্যবসায়ী, শিক্ষক, বিভিন্ন পেশাজীবীসহ সকল স্তরের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে আহসান হাবীব শাহীন শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।


তিনি আলমডাঙ্গার বাবুপাড়ার আব্দুর রশিদের ছেলে। মাত্র ৪০ বছর বয়সে ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ছোট্ট দুটি শিশু পুত্র, বাবা-মা'সহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
আহসান হাবীব রাজশাহী বিশ্ববিদালয়ের এলএলবি (অনার্স) ২০০০-০১ সেশনস (২৪ ব্যাচ)-এর শিক্ষার্থী ছিলেন।


তিনি বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিসের ৪র্থ ব্যাচের কর্মকর্তা ছিলেন। তিনি ২০১০ সালের ১৭ জানুয়ারি রাজশাহী জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সহকারী জজ হিসেবে যোগদান করেন। এরপর তিনি ময়মনসিংহে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ঢাকায় মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট, যশোরে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার এবং সবশেষ ঢাকায় স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (পল্লী বিদ্যুৎ) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

ম্যাজিস্ট্রেট আহসান হাবীবের মৃত্যুতে তাৎক্ষণিকভাবে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এবং আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার।

পৃথক শোক বার্তায় আইনমন্ত্রী ও সচিব মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

জানা গেছে, মরহুম আহসান হাবীব শাহীন স্যালিভারি গøান্ড ক্যান্সারে ভুগছিলেন। তিনি সবশেষ ২২ আগস্ট স্ট্রোকজনিত কারণে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন এবং মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন।

এদিকে, তার অকাল মৃত্যুতে পরিবারসহ আলমডাঙ্গাবাসী শোকে মুহ্যমান ছিল। যেন বিষাদের কালো ছায়ায় ঢেকেছিল সুনীল আকাশ।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram