সাম্প্রতিক

‘শিক্ষকের ছাত্রী নিপীড়ন অশুভ সংকেত’

ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের দায়ে অভিযুক্ত ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌল্লা এবং গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ইসলামী শাসনতন্ত্র (ইশা) ছাত্র আন্দোলন।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে চরমোনাই পীরের ছাত্র সংগঠনটির সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফ ও সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মাদ মুস্তাকিম বিল্লাহ বলেন, যৌন হয়রানি আজ মহামারি আকার ধারণ করেছে। একের পর এক যৌন হয়রানি দেশ ও জাতিকে ভাবিয়ে তুলছে। সাম্প্রতিক ফেনীতে অধ্যক্ষ কর্তৃক ছাত্রী নিপীড়ন ও নির্যাতনে সমাজে উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

তারা বলেন, ‘শিক্ষক পিতৃতুল্য, মাথার তাজ ও জাতির বিবেক। শিক্ষক আগামী প্রজন্ম গড়ার কারিগর। কিন্তু শিক্ষক কর্তৃক যখন ছাত্রী হয়রানির মতো ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটে এতে আমরা ক্ষুব্ধ হই এবং এটি জাতির জন্য অশুভ সংকেত বলে মনে করি।’

নেতারা আরও বলেন, ‘বারংবার যৌন হয়রানির মতো নিকৃষ্ট ঘটনা ঘটার পরও এর বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা আমাদের দৃষ্টিগোচর হচ্ছে না। অপরাধীরা ক্ষমতার অপব্যবহার করে আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে পার পেয়ে যাচ্ছে। এতে আগামী প্রজন্মের শিক্ষকদের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস কমছে এবং আইনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ নষ্ট হচ্ছে।’

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্তৃক দুই ছাত্রী হয়রানির অভিযোগের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং ফেনীতে ছাত্রী হয়রানির অভিযোগে অভিযুক্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন ইশার এই নেতারা।