সাম্প্রতিক

রৌমারীতে সাংবাদিকের গায়ে মদ ঢেলে নির্যাতন!!

রৌমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ রৌমারী থানা পুলিশের বিরুদ্ধে গ্রেফতার বাণিজ্যসহ নানা দুর্নীতির খবর প্রকাশ করায় পুলিশ ক্ষিপ্ত হয়ে রৌমারী থেকে প্রকাশিত মাসিক উত্তর চিত্র পত্রিকার বার্তা সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাজুকে সাজানো মামলায় আটক করে। পরে পুলিশ তার হাতে হ্যান্ডকাপ পড়িয়ে শরীরে মদ ঢেলে দিয়ে শারিরিক নির্যাতন করে প্রকাশ্য উপজেলা সদরে ঘুরিয়েছে। ন্যাককার জনক এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ সচেতন মহলে তোলপাড় শুরু হয়েছে। জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার রাত পৌনে ১১টার দিকে ইসলামি ব্যাংকের নিচতলায় মাসিক উত্তর চিত্র পত্রিকার কার্যালয়ে সাজু পত্রিকার কাজ করছিলেন। এ সময় রৌমারী থানার এসআই জিয়াউল হকের নেতৃত্বে ৪ জন পুলিশ আকর্ষিকভাবে তার কার্যালয়ে প্রবেশ করেই গালিগালাজ শুরু করে। এ সময় পুলিশের হাতে থাকা ব্যাগ থেকে একটি মদের বোতল বের করে তার শরীরে ঢেলে দিয়ে দু’হাতে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে টেনে হিচরে বের করে। এ ঘটনার সময় বাজারের বিপুল সংখ্যক লোক সেখানে জড়ো হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আগে থেকে সেখানে দাড়িয়ে থাকাক্ষিপ্ত ওসি সোহরাব হোসেন তাকে চরথাপ্পর ও লাথি মারতে মারতে প্রকাশ্য বাজারে ঘোরান। উপস্থিত লোকজন আটকের কারন জানতে চাইলে ওসি তাদের বলেন, মদ পান করায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রতিশোধ পরায়ণ পুলিশ রাত দেড়টার দিকে গ্রেফতারকৃত  সাংবাদিককেউপজেলানির্বাহীকর্মকর্তার কার্যালয়ে হাজির করে।   সেখানেউপজেলানির্বাহীম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হান্নান এর দপ্তরে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে সাজা দেয়ার চেষ্টা করে পুলিশ। বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেট অপরাধের বিষয় জানতে চাইলে আটক সাংবাদিক নিজেকে নিরাপরাধ বলে দাবি করেন। এ সময় ক্ষিপ্ত ওসি বিচারকের সামনেই তার ওপর নির্যাতন চালিয়ে দোষ স্বীকার করার চেষ্টা করেন। কিন্তু বিচারক মদ পানের কোনো প্রমাণ না পাওয়ায় তাকে কোনোসাজানা দিয়েফেরত পাঠিয়ে দেন। এরপর পুলিশ মদ পানের সাজানো মামলা দিয়ে আজ শনিবার সকালে তাকে কুড়িগ্রাম জেল হাজাতে প্রেরণ করে। আটক সাজু ও স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি সাংবাদিকদের জানান, সাম্প্রতিক সময়ে সীমান্ত লাগোয়া রৌমারী থানা এলাকায় ওসি শামিমের নেতৃত্বে ব্যাপক দুর্নীতি হয়। এসব দুর্নীতির খবর একাধিক সংবাদপত্রে প্রকাশিত হলে ওসি শামিমের বদলি হয়। তখন থেকে খবর প্রকাশের জন্য পুলিশ মূলত সাজুকেই দায়ি করে আসছিল। এরই জের হিসেবে সাজুকে গ্রেফতার করে হয়রানিমূলক মামলা দিয়েছে। এ প্রসঙ্গে বর্তমান ওসি সোহরাব হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে, মদ খাওয়া অবস্থায় ঐ সাংবাদিককে আটকের কথা জানান। শারীরিক নির্যাতনের ব্যাপারে প্রশ্ন করাহলেতিনিপুলিশীকাজেবাঁধাদেয়ায় তাকে দু’একটি চড়থাপ্পর মারার কথা স্বীকার করেন। রৌমারী ও রাজীবপুর সাংবাদিকদের তীব্র প্রতিবাদ। রৌমারী থেকে প্রকাশিত মাসিক উত্তর চিত্র পত্রিকার বার্তা সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাজুকে অন্যায়ভাবে আটক ও নির্যাতনের প্রতিবাদে রৌমারী ও রাজীবপুর উপজেলার সাংবাদিক সমাজ বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। রৌমারী প্রেসক্লাব ও রাজীবপুর প্রেসক্লাব এর উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা করে ঐ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে সাংবাদিক নির্যাতনের ঐ ঘটনায় জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবি জানিয়েছে সাংবাদিক সমাজ। আজ শনিবার সকাল ১১টার দিকে রৌমারী প্রেসক্লাব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ক্লাবের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক রাজু। বক্তব্য রাখেন দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকার সাংবাদিক কুদ্দুস বিশ্বাস, সাংবাদিক সাকিব আল হাসান রুবেল, নুরুল আমিন, আশরাফুজ্জামান, আনিচুর রহমান, শফিকুল ইসলাম, , সহিজল ইসলাম,। বক্তরা রৌমারী থানার ওসি সোহরাব হোসেন, এসআই জিয়াউল ইসলাম ও এএসআই ফারুক হোসেন এর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার দাবি করেন। নির্দোষ সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম সাজুকে নিঃশর্ত ভাবে মুক্তির  দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।