সাম্প্রতিক

রাশিয়া বাংলাদেশের উন্নয়ন কার্যক্রমের অংশীদার হতে প্রস্তুত

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাকের সাথে সাক্ষাৎ করতে এসে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ইগনাতভের বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা আরও দ্রুত এগিয়ে নিতে হলে সব সেক্টরকে দ্রুত ডিজিটালাইজ করতে হবে। রাশিয়া বাংলাদেশের সব উন্নয়ন কার্যক্রমের অংশীদার হতে প্রস্তুত। আলুসহ অন্যান্য কৃষিপণ্য রফতানির ক্ষেত্রে রাশিয়া বাংলাদেশ যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহী।

বৃহস্পতিবার কৃষি মন্ত্রণালয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত কৃষিমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করতে এসে এসব কথা বলেন। রাষ্ট্রদুত আলেকজান্ডার ইগনাতভের নেতৃত্বে এ প্রতিনিধি দলে জেএসসি ফরেন ইকোনমিক কর্পোরেশন প্রডডিংটর্গ ডিজি মিখাইল পটাপোভ, জেএসসি প্রডডিংটর্গ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলেকজান্ডার মোস্কালেনকো, জেএসসি প্রডডিংটর্গ জাতীয় গ্রুপ বাংলাদেশ’র স্থানীয় প্রতিনিধি মিয়া সাত্তার, মো. আমিরুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, রাশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের ঘনিষ্ঠ সামরিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে আস্থার সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হয়েছে। রাশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের এই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ১৯৭২ সালের ২৫ জানুয়ারি থেকে চলমান রয়েছে।

এ সময় মন্ত্রী বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের অবদানের কথাও স্মরণ করেন। রুশ বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের কৃষিখাত পরিদর্শনের আমন্ত্রণ জানিয়ে ড. রাজ্জাক বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে রাশিয়ার সঙ্গে মিলে মিশে কাজের প্রয়াস অব্যাহত থাকবে। এ সময় প্রতিনিধি দলটি কৃষিমন্ত্রীকে রাশিয়া পরিদর্শনের আহ্বান জানায়।