সাম্প্রতিক

মেহেরপুরে তাহের ক্লিনিকে আবারো ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু’র অভিযোগ

মেহেরপুর প্রতিনিধি: মেহেরপুরে তাহের ক্লিনিকে আবারো ভুল চিকিৎসায় রিমা খাতুন ’’২০’’ এক গৃহবধুর মৃত্যু’র অভিযোগ উঠেছে। সিজারিয়ান অপারেশনের পর শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় মৃত্যু হয় তার। রিমা খাতুন গাংনী উপজেলার হিজলবাড়িয়া মোল্লাপাড়ার রফিকুল ইসলামের মেয়ে ও একই উপজেলার তেঁতুলবাড়িয়া ইউনিয়নের রামদেবপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের স্ত্রী।
রিমা খাতুনের ফুফা ’’জামাই” মারুফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, রিমার প্রসব বেদনা উঠলে মেহেরপুর তাহের ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। দুপুর ১২ টায় ক্লিনিক মালিক ডাক্তার আবু তাহের রিমার সিরিয়ান অপারেশন করান। অপারেশন থিয়েটার থেকে রিমা খাতুনকে বের করার পরপরই সে ছটফট করতে থাকে এরপর রাত সাড়ে ৮টায় সময় মারা যায় সে। তিনি আরো বলেন, রিমার ভুল অপারেশন করার কারনেই তার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে। রিমার পরিবার জানায়, মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে লাশ আনতে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে ঠিক তার কিছুক্ষন পর তড়িঘড়ি করে তাহের ক্লিনিকের নিজস্ব এ্যামবুলেন্সে রিমার লাশ বাড়িতে পৌছে দেয়া হয়। এসময় বিক্ষুদ্ধ জনতা ও স্থানীয় লোকজন এ্যামবুলেন্স সহ ড্রাইভারকে আটকিয়ে রেখেছে।
ডাক্তার আবু তাহের বলেন, দুপুর ১২ টায় সময় রিমার সিজারিয়ান অপারেশন করার পর একটি পুত্র সন্তান হয়। মা ও ছেলে সুস্থ ছিলো। সন্ধ্যার সময় গাংনীতে রুগী দেখতে গিয়েছিলাম। এর পর রিমার অসুস্থতার সংবাদ শুনে দ্রত গাংনী থেকে মেহেরপুর অসার পর চিকিৎসা দিয়েও তাকে বাঁচানো গেলনা।
মেহেরপুরের সিভিল সার্জন ডাক্তার শামীম আরা নাজনীন জানান, রবিবার সকালে ঘটনার বিষয়ে জেনে তদন্ত কমিটি গঠন করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ মোহাম্মদ দারা জানান,রিমার পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও অভিযোগ দেয়নী। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য’’ ২০১৮ সালের ১২ সেপ্টম্বর মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল খালেককের শরীরে ভুল ইনজেকশন পুশ করার পর তার মৃত্যুর অভিযোগ করে স্বজনরা। এঘটনায় নিহত আব্দুল খালেকের স্বজনারা তাহের ক্লিনিক ভাংচুর করে।