সাম্প্রতিক

পোশাক শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আহ্বান

হত্যা, হামলা, নির্যাতন সমাধান নয়, সকল গ্রেডে সমান হারে মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে অবিলম্বে সকল কারখানা খুলে শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির সভা প্রধান তাসলিমা আখতার, সাধারণ সম্পাদক জুলহাসনাইন বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম শামার এক যৌথ বিবৃতিতে এ আহ্বান জানানো হয়।

সাভারের উলাইলে আন-লিমা কারখানার শ্রমিক ২২ বছর বয়সী সুমন মিয়াকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়ে বিবৃতিতে বক্তারা বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরেই উত্তরা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, সাভার, মিরপুরে শ্রমিকরা মজুরি বৈষম্যের বিরুদ্ধে এবং বকেয়া বেতন পরিশোধ, অবৈধ ছাঁটাইসহ অন্যান্য কারখানাভিত্তিক দাবি দাওয়া নিয়ে আন্দোলন করে আসছিলেন। শ্রমিকদের এই অসন্তোষের আসল কারণকে পাশ কাটিয়ে সমাধানে দ্রুত উদ্যোগ না নিয়ে মালিকপক্ষ কারখানা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে, যেটি শিল্পের জন্য ক্ষতি বয়ে আনবে।’

মালিক এবং সরকারপক্ষ সমস্যার যথাযথ সমাধান না করে শ্রমিকদের আন্দোলন বন্ধ করতে দমনের পথ বেছে নিয়ে পরিস্থিতিতে আরো জটিল করে তুলেছে। ব্যাপক পুলিশি হামলার ফলে শতাধিক শ্রমিক আহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন সুমন মিয়া। গুরুতর আহত অবস্থায় আছেন আরও কয়েকজন শ্রমিক বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

শ্রমিক সংহতির নেতারা বলেন, ‘গত বছরে ঘোষিত নতুন মজুরিতে সকল গ্রেডের সমান হারে মজুরি বৃদ্ধি না পাবার বিষয়টি পাশ না কাটিয়ে এ বিষয়য়ে দ্রুত উদ্যোগ নিতে হবে। সুমন মিয়া হত্যায় জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’

বর্তমানে শ্রমিকরা ব্যাপক নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে আছেন জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, দমন-নির্যাতনের মধ্যদিয়ে শ্রমিকদের আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না বরং তাদের ন্যায্য দাবি মেনে নিয়ে এই সংকট থেকে বের হয়ে আসতে হবে।