সাম্প্রতিক

দীপু মনিকে অপছন্দ মমতার

 ঢাকায় আরও আগে পা রাখার কথা ছিল মমতা ব্যানার্জির। প্রস্তুতিও ছিল। তখনকার প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এসেছিলেন। আসেননি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি যদি সেবার গো ধরে না বসতেন তবে হয়তো ছিটমহল, তিস্তাজট অনেক আগেই খুলতো।

তখন মমতার এমন কাণ্ডে হতবাক হয়েছিল ঢাকা। তৎকালীন পররাষ্ট্র মন্ত্রী দীপু মনি পরে কলকাতা সফরে গিয়ে মমতার সঙ্গে দেখা করেন। মনমোহন এলেও তার না আসায় যে সব প্রস্তুতি ভেস্তে গেছে, সেই বার্তাই তুলে ধরেছিলেন তিনি। প্রতিবেশী বন্ধুর কাছ থেকে বাংলাদেশ এমন আচরণ যে আশা করেনি তাও বলেছেন আকারে ইঙ্গিতে। মুখের ওপর সোটাসাপ্টা ‘সত্য কথার’ তেঁজ এখনও মিলিয়ে যায়নি মমতার স্মৃতি থেকে।

ঢাকা এসে উষ্ণ অভ্যর্থনায় মন মজেছে তার। কিন্তু দীপু মনির কথাও ভোলেননি। ঠিকই কাছের এক বাঙালি বন্ধুকে বললেন, ‘এপাড়ের মানুষ অনেক নরম বলেই জানতাম। কিন্তু দীপু মনির কথা আজও আমার কানে লাগে। বাব্বা কী তার কথার ঝাঁঝ। সৌজন্যবোধটুকুও বুঝি সিঁকেয় তুলেছিলেন দীপু।’

বৃহস্পতিবার ঢাকায় এসেছেন মমতা। থাকবেন তিনদিন। রাষ্ট্রীয় অনেক অনুষ্ঠানেও যোগ দেবেন। ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গেও হয়তো দেখা হবে এখানে-সেখানে। এর মাঝে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনির সঙ্গে যে তার চোখাচোখি হবে না, এমনটা তো নিশ্চিত করে বলা কঠিন। তখন কি চোখ মটকে দীপু মনির দিকে তাকাবেন মমতা? নাকি অতীত ভুলে স্বভাবসুলভ ভঙিমায় জানতে চাইবেন, ‘দিদি, ভাল আছেন তো?’