সাম্প্রতিক

জিবুর রহমান দেবদাসের ভিন্ন সংগ্রাম

 মুজিবুর রহমান দেবদাস ভিন্নমাত্রার একটি নাম। সম্প্রতি একুশে পদক-২০১৫ পেয়েছেন তিনি। মুসলিম হয়েও হিন্দু নাম গায়ে জড়িয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এ শিক্ষক। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে অন্যরকম এক সংগ্রামী তিনি।

১৯৭১ সালে মুজিবুর রহমান শিক্ষকতা করতেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে। মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজশাহীতে পাকস্তানি সেনারা যখন গণহারে হিন্দুদের হত্যা  শুরু করে তখন তিনি তার নাম পরিবর্তন করে ভিন্নমাত্রার প্রতিবাদ জানান। মুজিবুর রহমান পরিবর্তন করে নাম রাখেন দেবদাস।
নাম পরিবর্তনের জন্য বিরাট ঝক্কি-ঝামেলা পেরুতে হয়েছে তাকে। পাকিস্তানি হানাদাররা এক পর্যায়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। টানা পাঁচ মাস তাকে টর্চার সেলে আটকে রেখে তার ওপর নির্যাতন চালানো হয়।
একাত্তরে পাকিস্তানি সেনারা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের ক্যাম্প বানিয়েছিলো। ওই বছরের ১০ মে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে মুজিবুর রহমান তার নতুন নাম স্বাক্ষরিত এক চিঠি লিখেন।
চিঠিতে তিনি লিখেন, আমি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ছেড়ে দিতে চাচ্ছি। যতদিন না পাকসেনারা তাদের ঘাঁটি ক্যাম্পাস থেকে না সরাচ্ছে ততদিন আমি আপনাদের সাথে থাকতে পারবো না। যেদিন এ বিশ্ববিদ্যালয় সত্যিকার অর্থে এর পুরানো গৌরবে ফিরে আসবে সেদিন আমি যোগ দিতে পারবো। আমি আশা করছি এ গণহত্যা একদিন শেষ হবে।
চিঠিতে তিনি একটি বিষয়ে গুরুত্বারোপ করে লিখেন, আমি আমার নাম পরিবর্তন করেছি। ভবিষ্যতে যোগাযোগের জন্য আমার নতুন নামটি মনে রাখবেন।
চিঠির শেষ অংশে তিনি দি.দাস (দেবদাস) লিখে স্বাক্ষর করেন। একইসাথে তিনি তার আগের নাম উল্লেখ করে দেন।
দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি ফিরে যান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে। অথচ তাকে আর চাকরিতে নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
মুজিবুর রহমানের দেবদাসের এই ভিন্নমাত্রার প্রতিবাদ নিয়ে ২০০৭ সালে একটি ডকুমেন্টরি বানান মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি এবং গবেষক মফিদুল হক। যার নাম দেয়া হয় ‘দ্য সাউন্ড অফ সাইলেন্স’।
মফিদুল জানান, তিনি তার নাম পরিবর্তন করেছে ঠিকই কিন্তু তার দুটি নামের অর্থই এক। মুজিবুর রহমান ও দেবদাস দুটিরই বাংলা অর্থ ঈশ্বরের দাস। তিনি নাম পরিবর্তন করে বোঝাতে চেয়েছিলেন সবার উপরে মানুষ। ধর্মকে কখনো আগে নিয়ে আসা উচিত নয়।
বর্তমানে খুব সাদাসিধে জীবনযাপন করছেন মুজিবুর রহমান। ১৯৭৮ সাল থেকে জয়পুরহাটের মহারুল গ্রামের মধ্যেই তিনি তার জীবন সীমাবদ্ধ রেখেছেন।
একুশে পদক পাওয়ার খবর শোনার পর প্রতিক্রিয়াহীন ছিলেন চির সংগ্রামী এই মানুষটি। এমনকি পদক নেয়ার দিন তার মুখে কোনো হাসি দেখা যাচ্ছিলো না।
যুদ্ধের এতগুলো বছর পার হয়ে গেলেও এখনো দেবদাস বলেই সবাইকে পরিচয় দেন অন্যরকম সংগ্রামী এ মানুষটি।
x

Check Also

নিজ পল্লী নিবাসে প্রস্তুত এরশাদের কবর

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সমাধি ...