সাম্প্রতিক

কুষ্টিয়ায় নৌকার নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর

২৪ মার্চ মিরপুর উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকার বেশ কয়েকটি নির্বাচনী অফিস ও মোটরসাইকেল ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময়ে হামলাকারীরা বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী ও দলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফের ছবি, নির্বাচনী ব্যানার, পোস্টার, মোটরসাইকেল, প্লাস্টিকের চেয়ার ও টেবিল ভাঙচুর করে।

সোমবার বিকেলে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার নিমতলা বাজার এলাকায় নৌকার প্রীকের প্রার্থী কামারুল আরেফিনের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে জাসদ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুকুজ্জামান জনের কর্মী সমার্থকরা। পরে ছাতিয়ান ইউনিয়নের কালিতলায় নৌকার নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে।

এর আগে রোববার রাত ৯টার দিকে উপজেলার ছাতিয়ান বাধবাজার এলাকায় নৌকার সমার্থকদের ৭টি মোটরসাইকেল ও নৌকার নির্বাচনী অফিস ভাংচুর করে।

ছাতিয়ান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাছের আলী জানান, জাসদ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুকুজ্জামান জনের নেতৃত্বে একটি মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা থেকে এ হামলা চালানো হয়। এ সময়ে হামলাকারীরা বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী ও দলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফের ছবি, নির্বাচনী ব্যানার, পোস্টার, অর্ধশত প্লাস্টিকের চেয়ার ও ৩টি টেবিল ভাঙ্গচুর করে।

আমলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আজম আলী জানান, আমরা নৌকার প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়ে ফেরার পথে রামনগর বাধ এলাকায় আনারস প্রতীকের প্রার্থী ফারুকুজ্জামান জনের শীর্ষ সন্ত্রাসী উজ্জল হোসেন ওরফে খেপা শাহর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের উপরে হামলা চালায়। এসময় দেশীয় অস্ত্র, চায়নিজ কুড়াল দিয়ে মোটরসাইকেলে কোপাতে থাকে। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত শোন্দাহ ক্যাম্পের এসআই আয়ূব আলীর কাছে আমরা সাহায্য প্রার্থনা করলে উল্টো আমাদের গাড়ি ভাংচুরে সাহায্য করে। এসময় তারা আমাদের ৭টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছে।

নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী কামারুল আরেফিন জানান, ফারুকুজ্জামান জন জাসদের সমর্থন নিয়ে সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা নির্বাচনকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। সে ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী বিভিন্ন ধরণের অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দিয়ে একদিকে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ অন্যদিকে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্ট করছে। এরই ধারাবাহিকতায় তারা একের পর এক আমার নির্বাচনী অফিসে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে জাসদ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুকুজ্জামান জনের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।