সাম্প্রতিক

এবার ঈদে আলমডাঙ্গায় আগাম জাতীয় নির্বাচনি হাওয়া

সাম্প্রতিকী ডেস্ক: এবারের ঈদ একটু অন্যরকম অন্যান্য বছরের চে’। কারণ আগাম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হাওয়া এবারের ঈদে আচড়ে পড়েছে। পুরো রমজানজুড়েই কমবেশি তার প্রভাব ছিল লক্ষ্যণীয়। চলেছে ইফতার রাজনীতি।
কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের দপ্তর সম্পাদক হারদী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম পানু। তিনি বেশ আগেভাগেই নির্বাচনি গণসংযোগ শুরু করেছেন। পুরো রমজান মাস ও ঈদ পরবর্তিতে তিনি নিরলসভাবে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ও হাটবাজারে সংযোগ করছেন।
এছাড়া জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সদ্য যোগদানকারি নেতা কমান্ডার শহিদুর রহমান (পিএসসি – নেভী) রমজানে দলীয় নেতাকর্মিদের জন্য ইফতার পার্টির আয়োজন করেছিলেন। এখানে জাতীয়পার্টির দুটি অংশ। সভাপতি ও সম্পাদকসহ উপজেলা জাতীয় পার্টির অধিকাংশ নেতাকর্মি রয়েছেন জেলা সভাপতি এ্যাড সোহরাব হোসেনের পক্ষে। অন্যদিকে, শহিদুর রহমানের পক্ষে আছেন পৌর সভাপতিসহ দলের একাংশ। দু;জনই দলের মনোনয়নপ্রার্থি। এতদিন শহিদুর রহমান একাই আঞ্চলিকতার ধোয়া তুলে আসছিলেন। কারণ – আঞ্চলিকতার ধোয়া টেকসই হলে চুয়াডাঙ্গা -১ আসনের বৃহত্তর অংশ আলমডাঙ্গার প্রার্থির পোয়াবারো। কিন্তু তার সে আশায় বালি ঢেলেছেন এ্যাড সোহরব হোসেন। তিনিও আলমডাঙ্গার সন্তান। জাতীয়পার্টিতে যত না বেশি গণসংযোগের কাজ চলছে, তারচে’ বেশি চলছে পরস্পরের প্রতি বিষোদগার উদগিরণ। ফেসবুকের পাতায় চোখ রাখলেই তা স্পষ্ট হয়।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পৌর আওয়ামীলীগ নেতা হাসান কাদির গনু নিজ বাড়িতে ২ দিন ধরে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন। অনেকে দাবি করছেন – ওই ইফতার মাহফিল ছিল নির্বাচনি যোগাযোগের একটা মোক্ষম মাধ্যম।
ঈদের পরদিন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সামসুল আবেদীন খোকন বাড়িতে ঈদোত্তর প্রীতিভোজের আয়োজন করেন। সেখানে চুয়াডাঙ্গা -২ আসনের সাংসদ আলী আজগর টগরসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। পরদিন তিনি শহরে ঈদোত্তর শুভেচ্ছা বিনিময় করে বেড়ান। এ সবই আগাম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এমন দাবি ক্রমেই শহরে উচ্চকিত হচ্ছে।

x

Check Also

মক্কায় আবারও নারী হজযাত্রীর মৃত্যু

পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে সৌদি আরবের মক্কায় ১৭ জুলাই কুলসুম বেগম (৬৯) নামে আরও ...