সাম্প্রতিক

একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে উদাসীনতা!

একুশ। শব্দটি সংখ্যাতেই সীমাবদ্ধ নয়। তাতে মিশে আছে বাঙালির আবেগ, আর এই ভাষা রক্ষায় আত্মদানের এক অনবদ্য ইতিহাস। বাঙালির গর্বের এই দিনটি সম্পর্কে কমবেশি সবাই জানলেও তা নিয়ে এক ধরনের উদাসীনতা আছে চট্টগ্রামের ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলোতে। তাতে অনেক কোমলমতি শিক্ষার্থীই জানে না দিনটির গুরুত্ব। এমনকি সচেতন নন অভিভাবকরাও।

বলা হয়ে থাকে,  শিশুদের প্রথম শিক্ষক তাদের অভিভাবক। আর সেই অভিভাবকরাই বা কতটুকু জানেন এই দিবস সম্পর্কে!
বন্দরনগরীতে সব মিলে ২ শতাধিক ইংরেজি মাধ্যম স্কুল আছে। যার বেশিরভাগেই বাংলা ভাষা নিয়ে আলাদা পরিচর্যা নেই। তবে যে কটিতে আছে তাদের দাবি, শুধু স্কুলগুলো এগিয়ে আসলে হবে না, সচেতন হতে হবে অভিভাবকদেরও।
ভাষাবিদদের মতে, যে চেতনা থেকে একুশের জন্ম, শহীদদের আত্মত্যাগ-তাকে সমুন্নত রাখতে দরকার সব স্তরে সচেতনতা।
স্কুলপর্যায়ে নতুন প্রজন্মের মাঝে মাতৃভাষার বোধ জাগ্রত করা না গেলে বায়ান্নর সব চেতনাই হারিয়ে যাবে বলে আশংকা ভাষাবিদদের।
x

Check Also

নিজ পল্লী নিবাসে প্রস্তুত এরশাদের কবর

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সমাধি ...