সাম্প্রতিক

গ্রামবাসী মুকুলকে ধরে দিল পুলিশে, সকালে মিলল লাশ

সাতক্ষীরা শহরের অদূরে কুচপুকুর গ্রামে বাইপাস সড়কের পাশ থেকে মুকুল মোল্লা (৩৮) নামের এক ব্যক্তির হাত-পা ও নাক-মুখবাঁধা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত ব্যক্তি একজন পেশাদার চোর। তার বিরুদ্ধে ১৭টি চুরির মামলা রয়েছে। মুকুল মোল্লা শহরতলির বাঁকাল ইসলামপুর চরের বাসিন্দা।

তবে মুকুলের বাবা কেনা মোল্লা বলছেন, মুকুলকে গ্রামবাসী আটক করে রোববার বিকেলে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। সোমবার ভোরে তার লাশ উদ্ধার করা হয় কুচপুকুর থেকে।

তবে তাকে আটকের বিষয়টি অস্বীকার করে পুলিশ জানিয়েছে, চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে গণপিটুনিতে মুকুল মারা গেছে বলে তাদের ধারণা।

দিনমজুর কেনা মোল্লা আরো জানান, পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ইসরাফিলের কথা মতো গ্রামের লোকজন তার ছেলেকে ধরে আনে। পরে তারা তাকে মারধর দিয়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তার হাতে তুলে দেয়। সোমবার সকালে তার লাশ পাওয়া যায়।

জানতে চাইলে শহরের ইটাগাছা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ইসরাফিল জানান, তিনি মুকুলকে ধরে আনেননি। এমনকি গ্রামবাসীও তাকে ধরে দেয়নি। শহরের একজন পুলিশ কর্মকর্তা, ম্যাজিস্ট্রেট, পেশকারসহ বেশ কয়েকজনের বাড়িতে সম্প্রতি চুরি সংঘটিত হয়েছে। এসব চোরদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে। মুকুল কারও বাড়িতে চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে তাদের হাতে পিটুনি খেয়ে  প্রাণ হারাতে পারে বলে আমরা ধারণা করছি।

তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।