সাম্প্রতিক

গাছে বেঁধে অন্তঃসত্ত্বাকে নির্যাতন: নকলার ওসি প্রত্যাহার

শেরপুরের নকলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক অন্তঃসত্ত্বাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে নির্যাতন এবং গর্ভপাতের ঘটনায় থানার ওসি কাজী শাহনেওয়াজকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

তাকে প্রত্যাহার করে জেলা পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূঁইয়া।

এদিকে শেরপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আমিনুল ইসলামকে প্রধান করে গঠিত জেলা পুলিশের তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি এ বিষয়ে তদন্ত রিপোর্ট ইতিমধ্যে জমা দিয়েছেন বলেও জানান অতিরিক্ত ডিআইজি।

এর আগে শুক্রবার একই অভিযোগে ওই থানার এসআই মো. ওমর ফারুককে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

শেরপুরের নকলায় গাছের সঙ্গে বেঁধে এক গৃহবধূকে এক মাস আগে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর নড়েচড়ে বসে জেলা পুলিশ।

জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গত ১০ মে চোখেমুখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে ওই অন্তঃসত্ত্বাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছে তার ভাসুর, জা ও অন্যরা। এই দৃশ্য মোবাইলেও ধারণ করে রাখে তারা।

এ ঘটনায় গৃহবধূর গর্ভের সন্তান নষ্টও হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ওই নির্যাতিতা নারী।

এদিকে ১২ জুন বুধবার নির্যাতিত গৃহবধূর দায়ের করা মামলায় তার ভাসুর আবু সালেহ (৫২), নেছার উদ্দিন (৪৮) ও সলিমুল্লাহ (৪৪), জা লাকী আক্তার (৩৪), বড় জা নাসিমা আক্তার (৩৯), পৌর কাউন্সিলর রূপালী বেগম (৩৫), তার স্বামী আমিরুল ইসলাম (৪৫), প্রতিবেশি তাফাজ্জল হোসেন (৪৪) তার ছেলে ইসমাইল হোসেনসহ (২০) নয়জনকে এবং অজ্ঞাত আরও ৩-৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এদের মধ্যে আসামি নাসিমা আক্তারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

x

Check Also

জাতীয় মৎস্য পুরস্কার-২০১৯ উপলক্ষে রোপ্যপদক পেলেন ইমদাদুল হক হিমেল

জাতীয় মৎস্য পুরস্কার-২০১৯ –এ রোপ্য পদক পেলেন আলমডাঙ্গার ডামোশ গ্রামের মৎস্যচাষি ইমদাদুল হক হিমেল। কৃতিত্বের ...