সাম্প্রতিক

সন্দেশখালির ঘটনায় কাল দিবস পালন করছে বিজেপি

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগনার সন্দেশখালিতে বিজেপি কর্মীদের মৃত্যুর ঘটনায় সোমবার কাল দিবস পালন করছে বিজেপি। পাশাপাশি বসিরহাটে ১২ ঘণ্টার বনধ ডাকা হয়েছে। খবর এনডিটিভির।

সোমবার রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় কাল দিবস পালিত হচ্ছে। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় মিছিল করবে বিজেপি কর্মীরা। 

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় ইতোমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বার্তা এসেছে। বার্তায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার পরামর্শ দেোয়া হয়েছে। 

বিজেপির দাবি মৃত কর্মীদের কলকাতায় নিয়ে গিয়ে সৎকারেও বাধা দিয়েছে পুলিশ। তাই কলকাতার কাছে একটি গ্রামে সৎকার সারতে হয়েছে। সন্দেশখালির ঘটনায় বিজেপির তিন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি গেরুয়া শিবিরের।

এমন পরিস্থিতির ভেতরেই সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করবেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। তবে তিনি জানিয়েছেন, রাজ্যের রাজনৈতিক সংঘর্ষ সম্পর্কে আলোচনা করতে যাচ্ছেন না। দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় মোদীকে অভিনন্দন জানাতে যাচ্ছেন মাত্র। 

তিনি বলেন, রাজনৈতিক সংঘর্ষ নিয়ে আলোচনার জন্য আমি আসিনি। এর আগে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানানোর সুযোগ হয়নি তাই তার সঙ্গে দেখা করার সময় চেয়েছি।

দলীয় পতাকা লাগানোকে ঘিরে তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক তৃণমূল কর্মীকে খুনের অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। 

তবে বিজেপির দাবি, তাদের কর্মীদের খুন করেছে তৃণমূল। গোটা ঘটনার প্রতিবাদে বসিরহাট মহকুমায় ১২ ঘণ্টার বনধ ডেকেছে বিজেপি

কেন্দ্র পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। নির্বাচনের প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরেও কেন এত সংঘর্ষ হচ্ছে তা নিয়ে চিন্তিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এরপরই মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ‘পরামর্শ বার্তা’ রাজ্য সরকারকে দেওয়া হয়। তাতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আয়ত্তে রাখতে রাজ্য প্রশাসন ব্যর্থ বলে উল্লেখ করা হয়।। 

তবে পশ্চিমবঙ্গের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যেই আছে বলে দাবি করে রাজ্য প্রশাসন। তারা জানায়, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। 

তৃণমূল অবশ্য গোটা ব্যাপারটাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত হিসেবেই দেখছে। দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গ একটি শান্ত রাজ্য। সেখানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ পাঠানোর কোনো প্রয়োজন নেই। উত্তর প্রদেশ বা গুজরাটের ক্ষেত্রে কোনো পরামর্শ পাঠানো হচ্ছে না কেন? এটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে একটা চক্রান্ত। 

x

Check Also

সৌদি আরবে জেনেট জ্যাকসনের পদচারণায় জেদ্দা ওয়ার্ল্ড ফেস্টে কন্সার্ট নাচ ও গানে মাতাল

সৌদি আরব,তায়েফ প্রতিনিধি: জেডিএ ওয়ার্ল্ড ওয়ার্ল্ড ফেস্টের অংশ হিসাবে সৌদি আরবে আরো বেশি প্রোফাইল তারকা ...