সাম্প্রতিক

মাইকেল হোল্ডিংয়ের বাড়ি ফেরার হুমকি

চলতি বিশ্বকাপে বিতর্কের শেষ নেই। বৃষ্টিতে ম্যাচ ভণ্ডুল হয়ে যাওয়া থেকে আম্পায়ারিং- একের পর এক কারণে মুখ পুড়েছে আইসিসি-র। এই বিতর্কে নয়া সংযোজন কিংবদন্তি মাইকেল হোল্ডিংয়ের তোপ। তিনি সরাসরি বিশ্বকাপের মাঝপথেই দেশে ফিরে যাওয়ার হুমকি দিলেন। কারণ, ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তিকে সতর্ক করেছিল স্বয়ং আইসিসি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে দুই আম্পায়ার- ক্রিস গাফানি ও পালিয়া গুরুগের খারাপ আম্পায়ারিং ব্যাপক বিতর্কের জন্ম দিয়েছিল। একের পর এক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন দু-জনে। ক্রিস গেইলকে তিনবার লেগ বিফোর আউট দিয়েছিলেন গাফানি। পরে রিভিউয়ে আম্পায়ারদের সিদ্ধান্তই ভুল প্রমাণিত হয়। তৃতীয়বার অবশ্য রিভিউ নিয়ে বাঁচতে পারেননি তিনি। এরপরে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক জেসন হোল্ডারকেও লেগ বিফোর আউট দেওয়া হয়।

পরে দেখা যায়, হোল্ডারের আউটের আগের বল-ই নো বল হয়েছিল। সেই হিসেবে ফ্রি হিট হওয়ার কথা সংশ্লিষ্ট সেই বলে। সেই সময় ধারাভাষ্য দিচ্ছিলেন মাইকেল হোল্ডিং। তিনি অন এয়ার আম্পায়ারিংয়ের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন। হোল্ডিংয়ের বিতর্কিত মন্তব্যের পরেই আইসিসি-র জনৈক পদাধিকারী হিউ বেভান জানান, বিশ্বকাপের মূল্যবোধের কথা মাথায় রেখে নেতিবাচক কোনো কিছু কমেন্টটরদের বলা উচিত নয়। ই-মেইল পাঠিয়ে সতর্ক করা হয় হোল্ডিংকে।

তারপরেই কিংবদন্তি সাফ জানিয়ে দেন, সাবেক ক্রিকেটার হিসেবে আমার মনে হয়, “ক্রিকেটের মান আরো ভালো হওয়া উচিত। তারা খারাপ কাজ করলেও তাদেরকে বাঁচানোর প্রচেষ্টা হচ্ছে। যদি তারা ফিফা বিশ্বকাপে ম্যাচ পরিচালনা করতেন, তাহলে তাদের এই বিশ্বকাপে আর ম্যাচ পরিচালনা করতে দেয়া হতো না। অনুগ্রহ করে আমাকে জানানো হোক, কার্ডিফে যাওয়ার পরিবর্তে আমি কী দেশের নিউ মার্কেটে যাব?”

সবমিলিয়ে ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি রীতিমতো চাপে ফেলে দিলেন ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থাকে।