সাম্প্রতিক

বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষনা

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিশ্বকাপ দল ঘোষণা করা প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীনের মতে, এটাই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে শক্তিশালী দল।

নিউ জিল্যান্ড সফরের দল থেকে বাদ পড়েছেন পেসার শফিউল ইসলাম ও অফ স্পিনার নাঈম হাসান।

মিডল অর্ডারের ব্যাকআপ ব্যাটসম্যান কে হবেন, সেদিকে ছিল সবার নজর। বয়সভিত্তিক দলের সতীর্থ ইয়াসির আলী চৌধুরীকে তীব্র লড়াইয়ে হারিয়ে জায়গা পেয়েছেন মোসাদ্দেক। তরুণ এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার সবশেষ খেলেছিলেন গত বছরের এশিয়া কাপে।

কাঁধের চোটের জন্য বিশ্বকাপে সেভাবে বোলিং নাও করতে পারেন মাহমুদউল্লাহ। অফ স্পিন বোলিং এক্ষেত্রে মোসাদ্দেকের জন্য সহায়ক হয়েছে। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ব্যাটে-বলে নিজেকে মেলে ধরে দলে ফিরেছেন তরুণ এই অলরাউন্ডার। 

১২ ম্যাচে আবাহনী অধিনায়ক এক সেঞ্চুরি আর চার ফিফটিতে ৪৭.৫৫ গড় ও ৭২.৯১ স্ট্রাইক রেটে করেন ৪২৮ রান। ৪২৫ রান করে একটু পিছিয়ে ইয়াসির। তবে স্ট্রাইক রেট (১০০.৯৫) ও গড়ে (১০৬.২৫) অনেক এগিয়ে তিনি। বোলিংয়ে পাওয়া ৭ উইকেট এগিয়ে দিয়েছে মোসাদ্দেককে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিপিএলে ফাইনালে খেলার সময় আঙুলে চোট পাওয়ায় নিউ জিল্যান্ড সফরে যাওয়া হয়নি সাকিবের। তার জায়গায় সেবার কাউকে নেয়নি বিসিবি। চোট কাটিয়ে আইপিএল দিয়ে ক্রিকেটে ফিরেছেন বাংলাদেশ সহ-অধিনায়ক। আগামী সপ্তাহে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

গত বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে দলে ডাক পেয়েছিলেন আবু জায়েদ। সেবার কোনো ম্যাচে খেলার সুযোগ না পাওয়া এই পেসার সুইং বোলিংয়ের জন্য ডাক পেয়েছেন বিশ্বকাপ দলে।

 বিপিএলে খেলার সময় চোট পাওয়ায় নিউ জিল্যান্ড সফরের দল থেকে বাদ পড়েন তাসকিন আহমেদ। চোটের সঙ্গে লড়াইয়ে জিতে মাঠে ফিরলেও তার ফিটনেস নিয়ে সন্তুষ্ট নন নির্বাচকরা। তাই জায়গা মেলেনি এই তরুণ পেসারের।

নিউ জিল্যান্ড সফরে স্বাগতিকদের বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের বিবেচনায় প্রথমবারের মতো ওয়ানডে দলে জায়গা পেয়েছিলেন নাঈম। সেখানে কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়নি তার। আয়ারল্যান্ডে হতে যাওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে থাকলেও জায়গা পাননি বিশ্বকাপ দলে।

তাসকিনের চোটে নিউ জিল্যান্ড সফরের দলে ডাক পাওয়া শফিউল চলমান প্রিমিয়ার লিগের শেষ দিকে পুরোপুরি নিষ্প্রভ। বাজে ফর্মের জন্য জায়গা হারিয়েছেন মোহামেডানের একাদশে। বাজে বোলিংয়ের খেসারত দিয়ে বাদ পড়লেন জাতীয় দল থেকে।

আগামী ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে মাশরাফির বিশ্বকাপ অভিযান।

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডঃ

১/ মাশরাফি মুর্তোজা, (অধিনায়ক)
২/ সাকিব আল হাসান, (সহ অধিনায়ক)
৩/ তামিম ইকবাল,
৪/ মুশফিকুর রহিম,
৫/ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ,
৬/ মুস্তাফিজুর রহমান,
৭/ রুবেল হোসেন, 
৮/ মোহাম্মাদ মিঠুন,
৯/ মেহেদি হাসান মিরাজ, 
১০/ সাব্বির রহমান, 
১১/ সৌম্য সরকার, 
১২/ লিটন দাস, 
১৩/ মোহাম্মাদ সাইফুদ্দিন, 
১৪/ মোসাদ্দেক হোসেন ও 
১৫ / আবু জাহেদ রাহি।