সাম্প্রতিক

আইনপ্রণেতা ইলহান ওমরকে হত্যার হুমকি

আমেরিকার মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের আইনসভার প্রতিনিধি ইলহান ওমরকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে নিউইয়র্কে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
আমেরিকার ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) জানিয়েছে, গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির নাম প্যাট্রিক কারলিনিও (৫৫)। তিনি ইলহান ওমরের ওয়াশিংটন কার্যালয়ে ফোন করে তাঁকে হত্যার হুমকি দেন। ইলহান ওমরকে তিনি মিসরের নিষিদ্ধ ইসলামপন্থী সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুডের সদস্য বলে দাবি করেন। গুলি করে তাঁর মাথার খুলি উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।
প্যাট্রিককে ৫ এপ্রিল এফবিআই গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারের সময় তিনি সগর্বে বলেন, ‘আমাদের বাপ-দাদারা বেঁচে থাকলে ইলহান ওমরকে গুলি করে হত্যা করতেন।’
ইলহান ওমরের জন্মস্থান সোমালিয়া। সে দেশ থেকে আসা প্রথম আমেরিকান-মুসলিম আইনপ্রণেতা তিনি। ২০১৬ সালে মিনেসোটার হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সদস্য নির্বাচিত হন এই নারী। অভিবাসী ও শরণার্থী ইস্যু নিয়ে কাজ করেন তিনি।
ইসরায়েল ও মার্কিন রাজনীতিতে ইসরায়েলি লবির প্রভাব নিয়ে সমালোচনা করায় কয়েক সপ্তাহ আগে নিজ দল ডেমোক্রেটিক পার্টির ভেতরে ও বাইরে তোপের মুখে পড়েন ইলহান ওমর। তাঁর বক্তব্য ইহুদিবিদ্বেষী—এই অভিযোগে ডেমোক্রেটিক স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি প্রকাশ্যে তাঁর সমালোচনা করেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁকে (ইলহান ওমর) কংগ্রেসের বৈদেশিক কমিটি থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান।
তবে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রগতিশীল সদস্যরা ইলহান ওমরের পাশে রয়েছেন।

x

Check Also

ডুবছে দক্ষিণ এশিয়া, নিহত শতাধিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারী বর্ষণ ও বন্যায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে দক্ষিণ এশিয়ার তিন দেশ নেপাল, ...