সাম্প্রতিক

ফের গা ঢাকা দিয়েছেন তিন্নি!

 তারকা মডেল-অভিনেত্রী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি প্রায় ছয় মাস ধরে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন রয়েছেন মিডিয়া থেকে। শুধু তাই নয়, কাছের মানুষদের সঙ্গেও যোগাযোগ করছেন না তিন্নি। তার অবস্থান সম্পর্কেও কেউ কিছু বলতে পারছেন না। একই সময় ধরে নিজের ফেসবুকও ব্যবহার করছেন না। সর্বশেষ গত বছরের আগস্টের ১৮ তারিখ মেয়ে ওয়ারিশার সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন তিনি। তারপর থেকে ফেসবুক থেকেও উধাও। তার মোবাইল ফোন নম্বরটি কয়েক মাস ধরে বন্ধ। কাছের মানুষরাও তার নতুন নম্বর সম্পর্কে অবহিত নন।

তিন্নির এরকম উধাও হওয়ার ঘটনা অতীতেও অনেকবার ঘটেছে। তবে সে সময় ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করেননি তিনি। অনেকেই বলছেন তিন্নি এমনই। হয়তো দীর্ঘ সময়ের জন্য গাঢাকা দিয়েছেন। আবার অনেকে বলছেন তিন্নি হয়তো দেশের বাইরে রয়েছেন মেয়েসহ।
দুর্দান্ত গ্ল্যামার, ভাল অভিনয়, মেধা, শারীরিক সৌন্দর্য্য সব মিলিয়ে বেশ অল্প সময়ে ছোটপর্দায় আলোচনায় চলে এসেছিলেন তিন্নি। বিজ্ঞাপন ও নাটকে শুরু থেকেই সরব ছিলেন এ তারকা। শুধু সরব বললে ভুল হবে, মডেলিং ও অভিনয়ে চটজলদি শীর্ষস্থানটি দখল করে নেন তিনি। জনপ্রিয়তা ও সফলতা যখন হাতের মুঠোয় আসা শুরু করে, ঠিক তখনই বেপরোয়া চলাফেরা তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। আলোচিত এ অভিনেত্রী ধীরে ধীরে বিভিন্ন কারণে সমালোচিত হতে থাকেন। বেশ ক’জন অভিনেতার সঙ্গে তার সম্পর্কের স্ক্যান্ডালও দ্রুত ছড়ায়। পাশাপাশি বেপরোয়া চলাফেরা, খোলামেলা ফটোশুট, কাউকে পরোয়া না করার মানসিকতা, শিডিউল ফাঁসানোসহ বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত হন তিন্নি।
এখানেই শেষ নয়। তার একটি নগ্ন ভিডিও নিয়েও তোলপাড় শুরু হয়। সেই ভিডিওটি বাতাসের মতো তখন ছড়িয়েছিল ইন্টারনেটে। যদিও ভিডিওটি তার নয় বলে সবসময় মিডিয়াকে জানিয়ে এসেছেন তিন্নি। পরবর্তীতে মাদকের করাল গ্রাস তাকে অন্ধকারে নিয়ে যায়। তারপরও নিজের বেপরোয়া জীবনকে রুখতে পারেননি তিন্নি। তিনি তখনও উপলব্ধি করতে পারেননি ঝড়ের তাণ্ডবলীলার পরই সবকিছু থমকে যায়। এতো ঘটনার পরও অভিযোগ থামেনি তার বিরুদ্ধে। এরই মধ্যে বড়পর্দার হাতছানিও আসে তিন্নির কাছে।
অনেকেই বলে থাকেন তিন্নি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে নায়িকার খরায় ব্যাপক জল রাশি হয়ে ধরা দিতে পারতেন। কিন্তু সেটা হয়নি। একটি ছবি করলেও তার মাধ্যমে সফলতা পাননি। বেপরোয়া চলাফেরার কারণে অনেক পরিচালকই পিছপা হন তাকে নিয়ে সিনেমা নির্মাণে।
এদিকে অভিনেতা হিল্লোলের সঙ্গে প্রেম এবং পরবর্তীতে বিয়ে, সন্তান ও সম্পর্কের ভাঙন তিন্নিকে শুধু পিছনের দিকেই নিয়ে গেছে। ব্যক্তিজীবনের প্রভাব পড়তে থাকে ক্যারিয়ারে। অভিনয় একেবারেই কমিয়ে দেন তিনি। এদিকে প্রেমের বিয়ে হলেও পরবর্তীতে হিল্লোল তিন্নির বেপরোয়া জীবনযাপন মেনে নিতে পারেননি। এমনকি কন্যাসন্তান জন্ম দেয়ার পরও নিজেকে শুধরাতে পারেননি তিন্নি। হিল্লোল অপেক্ষা করতে থাকেন অবুঝ কন্যা ওয়ারিশার দিকে তাকিয়ে হয়তো তিন্নি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবেন। ভুল প্রমাণিত হন হিল্লোল। তিন্নি শুধরাননি। যার ফলে হিল্লোল তিন্নির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে বর্তমানে অভিনেত্রী নওশীনের সঙ্গে ঘর বেঁধেছেন।
হিল্লোল চলে যাওয়ার পর মেয়ে ওয়ারিশাকে নিয়ে থাকছিলেন তিন্নি। তবে হঠাৎ করেই সবার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করেন তিনি। তিন্নির এমন আড়াল হয়ে যাওয়ার বিষয়ে চিন্তিত নন তার কাছের মিডিয়া সংশ্লিষ্টরা। কারণ, এরকম নাটকের সূত্রপাত ও যবনিকা তিন্নির কাছ থেকে আগেও মিলেছে। এখন তিন্নির এমন আড়াল নাটকের অবসান কখন ও কীভাবে ঘটবে সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে অন্ধকার জীবন থেকে আলোর জগতে ফিরে এসে তিন্নি স্বাভাবিক জীবনযাপন করবেন, এমনটাই প্রত্যাশা করেছেন তার ঘনিষ্ঠজনেরা।