সাম্প্রতিক

ভাষার মাসে এ বছরও আলমডাঙ্গায় ৩ দিনব্যাপি বইমেলার আয়োজন

একঝাঁক স্বপ্নবাজ তরুণ কবি ও লেখক-সাহিত্যিকের স্বপ্নের ফসল আলমডাঙ্গা বইমেলা আজ আলমডাঙ্গার ঐতিহ্যে পরিণত হতে চলেছে। গত ৫/৭ বছরের মত এবারও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষাদিবস উপলক্ষে আলমডাঙ্গা শহীদ মিনার চত্ত্বরে ৩ দিনব্যাপি এ বইমেলার আয়োজন করা হয়েছে। আলমডাঙ্গা শহীদ মিনার চত্বরে এ প্রাণের মেলায় স্টল দিয়েছেন এলাকার সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংগঠণগুলো। আজ ২১ ফেব্রুয়ারি এ বইমেলা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন এ মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক আলমডাঙ্গা পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু। এ বইমেলায় আলমডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদ, কলমিলতা সাহিত্য পত্রিকা, শুদ্ধ সংষ্কৃতি চর্চাকেন্দ্র, আলাউদ্দিন আহমেদ পাঠাগার, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাব, বাংলাদেশ বইঘর, আলমডাঙ্গা আবৃতি পরিষদ, জয়ত্রী সাহিত্য পত্রিকাসহ বেশ কিছু সংগঠণ ও কিছু কবি-সাহিত্যিকের ব্যক্তিগত স্টল মেলার সৌন্দর্য বহুগুণ বৃদ্ধি করেছে।
মেলার অন্যতম স্বপ্নদ্রস্টার মধ্যে রয়েছেন তরুণ গল্পকার পিন্টু রহমান, সাম্প্রতিকী ডট কমের বার্তা সম্পাদক ও শুদ্ধ সংষ্কৃতি চর্চাকেন্দ্রের সভাপতি আতিকুর রহমান ফরায়েজী, কবি মামুন খন্দকার, আলমডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদের সভাপতি ওমর আলী মাস্টার, সম্পাদক আফম সিরাজ সামজী, খ. হামিদুল ইসলাম আজম, এইচ আর জীবন, আসিফ জাহান, আনোয়ার রশিদ সাগর, মোস্তাফিজুর রহমান ফরায়েজী,কিশোর কারুণিক প্রমুখ।
আলমডাঙ্গার মত ব্যবসাকেন্দ্রিক উপজেলা মফস্বলে নিয়ম করে প্রতি বছর বই মেলার আয়োজন মোটেও সহজসাধ্য ঘটনা না, রীতিমত দুঃসাহসিক পদক্ষেপ। স্বপ্নসারথি কিছু সাহিত্যিকের পাশে দাঁড়িয়েছেন আলমডাঙ্গা পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু। মেয়রের সানুগ্রহ আতিশায্যে গত ৫/৭ বছর নিয়ম করে ভাষার মাসে আলমডাঙ্গায় বইমেলার আয়োজন সম্ভব হয়েছে। সম্ভব হতে চলেছে এ বইমেলা আলমডাঙ্গাবাসির গৌরবময় ঐতিহ্যে রূপান্তরিত হওয়া। ছোট পরিসরে শুরু হওয়া আজকের এ বই মেলার আয়োজন অচিরেই এতদাঞ্চলে সবচেয়ে বড় বইমেলায় রূপান্তরিত হবে। এ বইমেলাকে ঘিরে নানা সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড আবর্তিত হবে। এমন দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করলেন আয়োজকরা। এ বইমেলাকে কেন্দ্র করে মেলা চত্বরে প্রতিদিন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকছে বলে উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন।