সাম্প্রতিক

যে কুসংস্কারগুলো এখনও মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন অনেকেই

আদিকাল থেকেই আমাদের মাঝে নানা কুসংস্কার এর প্রাদুর্ভাব রয়েছে। এমন কিছু কথা বিশ্বাস করেন অনেকেই যার আসলে কোন অস্তিত্ব নেই।

তথ্য-প্রযুক্তির বিজ্ঞানের এই যুগে অনেকেই এখনও অন্ধকারেই পরে আছে। কিছু শিক্ষিত জনসাধারণ ও এসব কথায় বিশ্বাস করেন। আসুন জেনে নেই সেই মজাদার কুসংস্কার-

১. শনিবারে চুল ও নখ কাঁটা যাবে না:
অনেক হিন্দুদের মতে শনিবারে নখ ও চুল কাটলে অমঙ্গল হতে পারে। কারন, শনিবারের সাথে শনি গ্রহের সম্পর্ক রয়েছে। এতে শনি গ্রহ রেগে যেয়ে ক্ষতি করতে পারে। যারা শনিবারে চুল ও নখ কাটছে আপনি তাদের জিজ্ঞেস করে দেখতে পারেন, তাদের উত্তর হবে শনিবার তাদের কোন অমঙ্গল করছে না।

২. কালো বিড়াল সামনে আসলে বিপদ:
বেচারা কালো বিড়াল! গন্তব্য পথে যাত্রাকালে বা কোন কাজ শুরু করার আগে যদি কালো বিড়াল সামনে পরে, তাহলে অনেকেই ধারণা করেন সেই কাজটি হতে অবশ্যই দেরি হবে নয়ত কাজটি কখনও সম্পূর্ণই হবেনা।

অনেকের ধারণা কালো বিড়াল নিকৃষ্টতম সৃষ্টি। তাদের উপরে রয়েছে অনেক অমঙ্গলের ছায়া। আমরা ছোটকালে পরীক্ষা দিতে যাবার সময় পথে অনেক কালো বিড়াল দেখা যেত, কিন্তু কোনদিনও তো পরীক্ষা পিছাতে বা পরীক্ষা বন্ধ হতে দেখলাম না।

৩. ১৩ তালা বিশিষ্ট দালান করা যাবে না:
এই বিষয়ে ব্যাখ্যা করার কিছুই নেই। কারন, এন্সিএন্ট ক্রিস্টীয়ানিটী এর ঘোষণা থেকে আজ পর্যন্ত ১৩ সংখ্যাটাকেই অমঙ্গলের সংখ্যা বলে মনে করা হয়। তাই, হোটেল হোক আর বাড়ির দালান সকলেই ১৩ সংখ্যাটাকে বাদ দেন।

৪. অভিশপ্ত সংখ্যা ৮:
জ্যোতির্বিদ্যা অনুযায়ী ৮ সংখ্যাটি শনি গ্রহ দ্বারা শাসিত হয়। অতএব, আপনার জীবনেও যদি ৮ সংখ্যাটির কোন প্রভাব বিদ্যামান থাকে তাহলে শনির প্রকোপ পরতে পারে আপনার উপর। এই তথ্যগুলোর কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

৫. পিয়াজ ও ছুরি আপনার দুঃস্বপ্ন তাড়াবে:
সদ্যজাত শিশুর দুঃস্বপ্ন দূর হবে, বালিশের নিচে ছুরি ও পিয়াজ রাখলেই। এছাড়াও আপনি নিজে ঘুমানোর আগে বালিশের নিচে একটি পিয়াজ রেখে ঘুমালে আপনার জীবন সঙ্গীকে নিয়ে অনেক সুন্দর স্বপ্ন দেখতে পাবেন। তাই, আপনারা আজই এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করে দেখুন। দেখা যাক কথাটা কতটা সত্য।

৬. পা ঝাঁকি দেয়া আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর:
যাদের অযথা পা ঝাঁকানোর অভ্যাস রয়েছে তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। পা ঝাঁকালে যদি সত্যি স্বাস্থ্য কমে যেত, তাহলে পৃথিবীতে মোটা মানুষ থাকতোনা।

৭. সন্ধ্যায় ঘর ঝাড়লে, ঘরের লক্ষ্মী চলে যায়:
ঘর যত নোংরাই থাকুক না কেন সন্ধ্যার সময় ঘর ঝাড়ু দেয়া যাবে না। বিশেষ করে সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৭টা এর মধ্যে তো অবশ্যই না। কারন ওই সময় লক্ষ্মী আসে ঘরে, কিন্তু ময়লা দেখলে সে চলে যাবে। কেন? ময়লার সাথে তার কি সমস্যা আছে?

৮. চোখ লাফানো:
বাম চোখ লাফালে মেয়েদের জন্য ভালো আর ডান চোখ লাফালে ছেলেদের জন্য ভালো। এতে অনেক খুশির খবর আসার সম্ভাবনা থাকে। এবার থেকে আপনারাও এই ব্যাপারটি লক্ষ্য করে দেখতে পারেন। দেখুন, এই মজাদার কুসংস্কারটি কতটা সত্য।

৯. কাকের বিষ্ঠা মঙ্গল বয়ে আনে:
কাক যদি যাত্রাকালে মলমূত্র ত্যাগ করে তাহলে মঙ্গল বয়ে আসে। যদি এমনই হত তাহলে তো মানুষ পোষা প্রাণী হিসেবে কাককেই পালন করত।

১০. উপহার সামগ্রীর সাথে এক টাকার পয়সা অনেক মূল্যবান:
যেহেতু, ১ সংখ্যাটিকে সবাই ভাগ্যবান বলে বিবেচনা করে। তাই সকল অনুষ্ঠান, বিশেষ করে হিন্দুদের পুজায় ১ টাকার মূল্য অনেক।

১১. নজর থেকে বাঁচাবে কালো টিপ:
বাচ্চাদের খারাপ নজর থেকে বাঁচাবে কালো টিপ। যা তাদের কপালে বা গালে লাগান হয়। এতে বাচ্চাদের কোন নজর লাগে না।

এরকম আরও অনেক কুসংস্কার আমাদের সমাজে রয়েছে। যার মধ্যে ১ শতাংশ ও সত্যতা নেই। তাই আমরা এই ভ্রান্ত ধারণাগুলো দূর করতে না পারলেও নিজেরা যেন এইসব কুসংস্কার এর শিকার না হই সেদিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখব।