সাম্প্রতিক

স্বপ্ন পূরণ হলো না জাবি ছাত্রী স্বপ্নার

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সেই মেধাবী ছাত্রী স্বপ্নার শুধু ‘স্বপ্ন’ই থেকে গেল।

শুক্রবার রাত পৌনে ১১টার দিকে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় না ফেরার দেশে চলে যান স্বপ্না।
তার বন্ধু শরীফুল করীর শামীম  এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
তার অকাল মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
শনিবার সকাল ৮টায় স্বপ্নার প্রথম জানাজা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। পরে তার লাশ নাটোরের বনপাড়া উপজেলার ঢুলিয়া গ্রামের পাঠানো হবে।
২০১১ সালের ২ সেপ্টেম্বর বিয়ের পর স্বপ্না ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে ভর্তি হন। প্রথম বর্ষের পরীক্ষার ফলাফলে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন স্বপ্না। তারপর থেকেই মেধাবী স্বপ্নাকে ঘিরে সম্ভাবনার আলো দেখতে থাকেন স্বপ্নার পরিবার ও তার বন্ধুরা।
গত ১১ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় বর্ষের (৪১তম ব্যাচ) ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরে ব্যাথা কমাতে বেশ কয়েকটি প্যারাসিটামল সেবন করে ঘুমিয়ে পড়েন। এরপর  ১৪ ফেব্রুয়ারি বমি ও জ্বর নিয়ে তাকে ভর্তি করা হয় সাভারে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।
নাটোরের বনপাড়া উপজেলার ঢুলিয়া গ্রামের কৃষক সবের আলী ও মালেকা বেগমের কন্যা স্বপ্না। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে সবার ছোট ছিলেন তিনি। দুই ভাই তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিক। বরাইগ্রাম উপজেলা পরিষদের ষাটমুদ্রাক্ষরিক রাফিউর রহমানের সঙ্গে বিয়ে হয় স্বপ্নার।