সাম্প্রতিক

সামনে আসছে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড়

মৌসুমের শেষ শৈত্যপ্রবাহের মধ্য দিয়ে শীতকাল বিদায় নিচ্ছে এ মাসের প্রথমার্ধেই। এরপর তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করবে। সেইসঙ্গে ফেব্রুয়ারি শেষে শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড় এবং মার্চেই তীব্র গরম পড়তে পারে দেশের উত্তর-পশ্চিমাংশে।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, মার্চ মাসে তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রিতে উঠার পাশাপাশি কালবৈশাখীর সঙ্গে বজ্রঝড়ও হতে পারে। আবহাওয়ার দীর্ঘ মেয়াদী পূর্বাভাস দিতে গতকাল রোববার বিশেষজ্ঞ কমিটির সভায় বিগত মাসের তথ্য পর্যালোচনা করে চলতি মাসের আবহাওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

অধিদফতরের পরিচালক এবং বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান সামসুদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, ফেব্রুয়ারি মাসে দেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসের প্রথমার্ধে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের উপর দিয়ে একটি মৃদু (০৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস)/মাঝারি (০৬-০৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথমার্ধে দেশের নদ-নদীর অববাহিকা ও অন্যত্র সকালের দিকে হালকা/মাঝারি ধরণের কুয়াশা থাকার সম্ভাবনা আছে। এ মাসের শেষার্ধ থেকে দিন ও রাতের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাবে।

ফেব্রুয়ারি মাসের দ্বিতীয়ার্ধে দেশের উত্তর, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে ১-২ দিন শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড় হতে পারে বলেও জানিয়েছেন সামসুদ্দিন আহমেদ।

দীর্ঘ মেয়াদী পূর্বাভাসে মার্চ মাসের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মার্চ মাসে সামগ্রিকভাবে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসের দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে ১-২ দিন মাঝারী/তীব্র কালবৈশাখী/বজ্র-ঝড় ও দেশের অন্যত্র ২-৩ দিন হালকা/মাঝারি কালবৈশাখী/বজ্র-ঝড় হতে পারে। মার্চ মাসে দিনের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে বেড়ে প্রায় স্বাভাবিক (৩৪-৩৬) ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে। তবে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে তাপমাত্রা (৩৭-৩৮) ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে।

আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, পাবনা, পঞ্চগড় ও চুয়াডাঙ্গা জেলাসমূহের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। এছাড়া অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক এবং শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।

পিডিএসও/হেলাল