সাম্প্রতিক

শোক দিবসে বরাদ্দকৃত কাঙালিভোজের গরু গভীর রাতে জবাই করে খেলেন চেয়ারম্যান!

কুমিল্লা প্রতিনিধি: জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত কাঙালিভোজের জন্য বরাদ্দ করা একটি গরু জবাই করে নিজেই মাংস ভাগ করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে এক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। কাঙালিভোজের গরু না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কাঙালিভোজের জন্য পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল (লোটাস কামাল) পুরো উপজেলায় প্রত্যেক সংসদীয় নির্বাচনী কেন্দ্রে একটি করে মোট ৮৭টি গরু বরাদ্দ দেন। সে অনুযায়ী ইউনিয়নের ছুপুয়া কেন্দ্রের গরু নিয়ে আসেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম। ১৪ আগস্ট সন্ধ্যায় ছুপুয়া কেন্দ্রের নেতাকর্মীরা ইউনিয়ন পরিষদে গরু নিতে গেলে চেয়ারম্যান তাদের ফিরিয়ে দেন।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের ছুপুয়া কেন্দ্রের আহ্বায়ক জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘শুনেছি, আমাদের প্রিয় নেতা লোটাস কামাল এবার কাঙালিভোজ ও মিলাদ মাহফিল করার জন্য প্রত্যেক কেন্দ্রে একটি করে গরু বরাদ্দ দিয়েছেন। তা শুনে অনেক খুশি হয়েছি। পরে আমরা কয়েকজন নেতাকর্মী ইউনিয়ন পরিষদে গরু আনার জন্য গেলে চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম নানা তালবাহনা শুরু করেন। রাত ১১টার তিনি বলেন, “আপনাদেরকে কোনো গরু দেওয়া হবে না। আপনারা চলে যান।” আমরা চলে আসার পর চেয়ারম্যান গভীর রাতে গরুটিকে জবাই করে কিছু সংখ্যক লোক নিয়ে মাংস ভাগ ভাটোয়ারা করে বাড়িতে নিয়ে যান।’

তবে আজ শুক্রবার কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেন। অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সবার সম্মতির মধ্যে গরুটি মাহিনীতে জবাই করা হয়।’

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!