সাম্প্রতিক

সেনাবাহিনী নিয়ে পানি ঘোলা করা ঠিক না

 দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনীকে বিতর্কিত করা ঠিক নয় বলে মনে করেন দেশের সাবেক সেনাকর্মকর্তারা। তাদের ভাষ্য, সেনাবাহিনীকে বিতর্কিত করে পানি ঘোলা করার কোনো মানে নেই। দেশে বর্তমানে রাজনৈতিক সঙ্কট চলছে। এই সঙ্কট রাজনৈতিকভাবেই মোকাবেলা করতে হবে। অন্যকোনোভাবে এই সমস্যা সমাধান করা যাবে না।
সম্প্রতি নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার দুইটি ফোনালাপ ফাঁস হয়েছে। এরমধ্যে একটিতে বর্তমান পরিস্থিতিতে সেনাহস্তক্ষেপের বিষয় নিয়ে আলোচনা রয়েছে। আর অন্যটিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দখল নিয়ে লাশ ফালানোর প্রসঙ্গ এসেছে।
গতকাল রবিবার রাতে গণমাধ্যমসহ স্যোসাল মিডিয়া ও ইউ টিউবে ছড়িয়ে পড়ে এই ফোনালাপ। এনিয়ে এখন রাজনৈতিক অঙ্গনে আগুনে ঘি ঢালার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তোলপাড় চলছে সর্বত্রই।
সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপের বিষয়ে মান্নার সঙ্গে অজ্ঞাত অস্ট্রেলিয়া প্রবাসীর আলাপ নিয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক সেনাপ্রধান মাহবুবুর রহমান  বলেন, ‘সেনাবাহিনী আমাদের অহংকার ও গর্বের প্রতীক। তাদেরকে নিয়ে কোনো তর্কে জড়ানো ঠিক নয়। কারণ সেনাবাহিনী দেশের বিভিন্ন দুর্যোগে পাশে থাকে। তাদেরকে তাদের মতো করেই কাজ করতে দেয়া উচিত। কোনো বিতর্কে সেনাবাহিনীকে জড়ানো উচিত নয়।
জানতে চাইলে নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশীদ  বলেন, ‘আমাদের সংবিধানে একটি নতুন বিষয় যোগ হয়েছে-সেটি হল অসাংবিধানিক উপায় কেউ ক্ষমতা দখল করলে তার বিচার হবে। তবে আমাদের সেনাবাহিনী বর্তমানে অনেক দায়িত্বশীল। তাদেরকে নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করা কোনোভাবেই সমীচীন হবে না।’
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা রাজনৈতিক নৈতিকতার দিক থেকে মোটেও ঠিক না। মান্না ভাই একদিকে নাগরিক ঐক্যের ব্যানারে শান্তির পায়রা উড়াচ্ছেন। অন্যদিকে তিনি ভেতরে ভেতরে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হবেন এটা ঠিক নয়। তারা গণতন্ত্রের জন্য কাজ করছে বলে মনে হয় না। তারা সরকার উৎখাতের জন্য কাজ করছে। এরআগে মান্না ভাই এক/এগারোর হুমকি দিয়েছেন। এটাকে রাজনীতি চর্চার অংশ বলা যায় না। গণতন্ত্র চর্চার সুস্পষ্ট দিকও এটি নয়।’
জানতে চাইলে কল্যাণ পার্টির সভাপতি মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম বীর প্রতীক বলেন, ‘আমি আসলে সেনাবাহিনীর লোক ছিলাম তো। তাই আমার কথা না দিয়ে সাধারণ মানুষের কথা দিলে ভাল হয়। তবে ফোনালাপটি আমি এখনও পড়ি নাই।’
এ বিষয়ে সাবেক সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান   বলেন, ‘সেনাবাহিনী নিয়ে পানি ঘোলা করার কোনো অর্থ হয় না। বর্তমানে দেশে একটা রাজনৈতিক ক্রাইসিস চলছে। এই সমস্যা থেকে উত্তরণে সেনাবাহিনীকে জড়ানো ঠিক নয়। উত্তর পাড়ার হস্তক্ষেপ কোনো সমাধান নয়। এ সমস্ত আচরণের জন্য আমাদের গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা বাধাগ্রস্ত হয়।’
তিনি বলেন, ‘মান্না সাহেব যা বলেছেন। এগুলো মোটেই ঠিক না। অযথা আন্দোলনকে অন্যদিকে প্রবাহিত করতে এসব করা হচ্ছে।’