সাম্প্রতিক

মান্না নয়, সরকারের মন্ত্রীদের সাথেও কথা হয়

 শুধু মাহবুবুর রহমান মান্না নয় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রী এমপিদের সাথেও কথা হয় বলে জানিয়েছেন বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা।
সম্প্রতি মান্নার সাথে কথোপকথন নিয়ে নিউইয়র্কে অবস্থানরত খোকা জানান, রাজনীতি নিয়ে মান্নার সাথে একাডেমিক আলোচনা হয়েছে। আর লাশের বিষয়টি সম্পূর্ণ ভোগাস বলে জানিয়েছেন তিনি।
খোকা বলেন, একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে মান্নার সাথে আমার সবসময় যোগাযোগ হয়। আমেরিকায় আসার পর উনার সাথে আমার ২০ থেকে ২৫ বার আলাপ আলোচনা হয়েছে। উনি আমার স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নিয়েছেন। তার সাথে আমার রাজনীতি নিয়ে একাডেমিক আলোচনা হয়েছে। আমার সাথে তো আওয়ামী লীগের অনেক নেতার সাথে আলাপ হয়। দু’একজন মন্ত্রীর সাথেও আলাপ হয়েছে, ১৪ দলেরও অনেক নেতার সাথে হরহামেশা আলাপ হচ্ছে, সুশীল সমাজের নেতাদের সাথেও আলাপ হচ্ছে। তাতে কি হয়েছে?
আওয়ামী লীগের কোন কোন নেতার সাথে আলাপ হচ্ছে- এই প্রশ্নের জবাবে খোকা বলেন, আমি উনাদের নাম বলতে চাই না। নাম বললে উনারা এখন বিপদে পড়বেন।
আওয়ামী লীগের মন্ত্রী এবং নেতাদের নাম বলে আপনি তাদের বিপদে ফেলতে চাচ্ছেন না, কিন্তু মাহমুদুর রহমান মান্নাতো বিপদে পড়ে গেলেন- এই বিষয়টি উল্লেখ করার সাথে সাথেই খোকা বললেন, মান্না সাহেবের বিপদের কী আছে? আমরা তো এমন কিছু আলোচনা করিনি যাতে তিনি বিপদে পড়তে পারেন। আমরা যেহেতু রাজনীতি করি সেহেতু আমাদের মধ্যে আলাপ আলোচনা হতেই পারে। দেশের এই নাজুক পরিস্থিতিতে উনার কী ভাবছেন, আমরা কী ভাবছি- তা নিয়ে সমন্বয় করার বিষয় থাকতে পারে।
যে অডিওটি চালানো হচ্ছে তার সব কিছু সত্যি নাকি- এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি এটা শুনিনি। তবে শুনবো।
লাশ ফেলানো নিয়ে কোন কথা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, লাশ ফেলানো নিয়ে কোন কথা হয়নি। এটি সম্পূর্ণ ভোগাস। সম্পূর্ণ একাডেমিক আলোচনা হয়েছে, কী করলে কী হবে, অতীতে কী হয়েছে? আগামীতে কী হতে পারে, ছাত্র আন্দোলনের গতি প্রকৃতি, ক্রসফায়ার, আমাদের কৌশলের কোন পরিবর্তন আনা দরকার কী না, আমাদের আন্দোলন কত দিন চলতে পারে, সরকারের উপরে চাপটা আরো কীভাবে বাড়ানো যায়, জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে আমাদের সমর্থনের পরিধি আরো কিভাবে বাড়ানো যায় এসব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমি আসলে জানতে চেয়েছি অন্যান্য দলগুলোর অবস্থান কী। এতে দোষের কী আছে?
মাহমুদুর রহমান মান্না সভা বা মিছিল করার জন্য লোক চেয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের একটি মিছিল বা সমাবেশ করার কথা। তাদের সাথে এখন আমাদের কর্মসূচির ভিন্নতা তো নেই। তার কর্মসূচি কিভাবে সফল করা যায় সেটাও তিনি জিজ্ঞেস করেছিলেন।
আপনাদের এই কথপোকথন মিডিয়ায় আসলো কিভাবে- এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটাও সরকারের একটি কূটকৌশল। এটা সরকারই করিয়েছে। অন্যদিকে একজনের ব্যক্তিগত কথোপকথন জনসম্মুখে দেয়া আইন বহির্ভূত বলে আমি মনে করি। আবার যে সব মিডিয়ায় এসেছে সেই সব মিডিয়ার সঙ্গে সরকারের যোগসাজস রয়েছে এবং সরকারও সেই সব মিডিয়াকে পৃষ্ঠপোষকতা করে।