সাম্প্রতিক

ধর্ষণ, হত্যা ও নির্যাতনে ছেয়ে গেছে দেশ: রিজভী

আইনের শাসন না থাকায় দেশব্যাপী এক ভয়ঙ্কর অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছেন, ‘প্রতিদিন নানা দুর্ঘটনায় মানুষের প্রাণহানির পাশাপাশি নারী ও শিশু নির্যাতন এখন মহামারি আকার ধারণ করেছে। ধর্ষণ, হত্যা ও নির্যাতনে ছেয়ে গেছে দেশ।’

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নবগঠিত জাতীয়তাবাদী তাঁতীদলের পরিচিত সভায় দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির এই মুখপাত্র সরকারের প্রতি অভিযোগ করে বলেন, ‘সুষ্ঠু বিচার ব্যবস্থার অভাব এবং অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হওয়ার কারণে বাংলাদেশ নামক স্বাধীন রাষ্ট্রটি বর্তমানে এক জুলুমের নগরীতে পরিণত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মানবতা ও মানবিক মূল্যবোধের অভাবে এবং সরকার নিজ স্বার্থে রাষ্ট্রযন্ত্রকে যথেচ্ছ ব্যবহারের ফলে দেশের মানুষ সর্বদা এক অজানা আশঙ্কায় আতঙ্কিত জীবন অতিবাহিত করছে।’

দেশের মানুষ এখন পুরোপুরি নিরাপত্তাহীন দাবি করে রিজভী বলেন, ‘সারা দেশ যেন এক মৃত্যু উপত্যকায় রুপান্তরিত হয়েছে। বর্তমান ‘স্বৈরাচারী’ সরকারের নিষ্ঠুর শাসন থেকে মুক্তি পেতে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আগামীতে বিএনপিঘোষিত সব আন্দোলন-সংগ্রামে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে ঝাঁপিয়ে পড়ার কোনও বিকল্প নেই।’

নবগঠিত কমিটির নেতারা সংগঠনটিকে গতিশীল ও সুসংগঠিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন রিজভী।

এসময় তাঁতীদলের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ ও বিএনপির তাঁতীবিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম খান, নবগঠিত কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক ড.কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।