সাম্প্রতিক

জনগণকে আতঙ্কে রেখে সংলাপ হবে না

 সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আন্তর্জাতিকভাবে বিদেশিদের কাছে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে একটি কুচক্রী মহল পেট্রলবোমা মেরে মানুষকে পুড়িয়ে মারছে। জনগণকে আতঙ্কে রেখে সংলাপ হবে না। সংলাপ চাইলে আগে সহিংসতা ছাড়তে হবে।

আজ শনিবার সকালে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ফেনীর দাগনভূঁঞায় ভাষা শহীদ সালামের গ্রামের শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে মন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় ফেনী আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, সংর‌ক্ষিত নারী সাংসদ জাহানারা বেগম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান, দাগনভূঁঞা উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির উপস্থিত ছিলেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ৫ জানুয়ারি নির্বাচন না করে বিএনপি একটি ঐতিহাসিক ভুল করেছে। সে ভুলের খেসারত বাংলাদেশের মানুষ দিতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগেই ডেকেছিলেন। সেদিন সংলাপে অংশ নিলে আজ এ দাবি তুলতে হতো না।
মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এতে কিছু মহল ঈর্ষান্বিত হচ্ছে। বাংলাদেশের ভবিষ্যতের ওপর, শিক্ষার ভবিষ্যতের ওপর বোমা হামলা হচ্ছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, শিক্ষার ভবিষ্যৎ নষ্ট করা হচ্ছে। যারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন, তারাই সন্ত্রাস-বোমাবাজি করছে। ইরাক, সিরিয়া, পাকিস্তানে তাই হচ্ছে। বাংলাদেশ ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশ হতে চায় এবং ২০৪১ সালে পৃথিবীর উন্নত দেশ হিসেবে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী। তিনি অভিযোগ করেন, এতে কিছু কুচক্রী মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চাইছে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ জাতিসংঘের অন্তর্ভুক্ত একটি দেশ। দেশের সহিংস ঘটনায় তাদের উদ্বেগ থাকতেই পারে।
সকালে ভাষা শহীদ সালামের গ্রামের শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে আরও শ্রদ্ধা জানায় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সালামের পরিবার, সালাম পরিষদ, দাগনভূঁঞা উপজেলা পরিষদ, প্রেসক্লাব, এলাকার বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন। ফুলে ফুলে ভরে ওঠে সালাম নগর শহীদ মিনার। সকাল থেকে সেখানে বিভিন্ন মেলা বসে।