সাম্প্রতিক

এসএমএস করে ভোট চাচ্ছেন সোলায়মান শেঠ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রচার-প্রচারণায় উত্তপ্ত পাহাড়ী জনপদ খাগড়াছড়ি। শহর ছাড়িয়ে গ্রামেও ছড়িয়ে পড়েছে এ নির্বাচনী উত্তাপ। জয়ের লক্ষ্যকে সামনে রেখে পাহাড়ের দুর্গম জনপদে নির্ঘুম প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন আওয়ামী লীগ-বিএনপি-জাতীয় পার্টির প্রার্থীসহ পাঁচ প্রতিদ্বন্দ্বী।

প্রচারণার শুরু থেকেই এক প্রার্থী উত্তরে গেলে অপর প্রার্থী দক্ষিণে আর অন্য প্রার্থী ছুটছেন পূর্ব বা পশ্চিমে। এভাবেই চলছে ভোট যুদ্ধ। বসে নেই প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকরাও।

নির্বাচনের ৮ দিন বাকি থাকতেই ২৯৮ পার্বত্য খাগড়াছড়ি সংসদীয় আসনে নির্বাচনী প্রচারে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছেন জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মো. সোলায়মান আলম শেঠ। কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ভোটের মাঠে অবিরাম ছুটে চলার পাশাপাশি ভোটারদের ক্ষুদেবার্তা (এসএমএস) পাঠিয়ে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চাইছেন এ প্রার্থী। গত দুই দিন ধরেই লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চেয়ে ভোটারদের মোবাইলে তার ক্ষুদে বার্তা (এসএমএস) আসতে শুরু করেছে।

জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মো. সোলায়মান আলম শেঠের ‘৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের সালাম নিন, লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিন- এস.এ শেঠ’ লেখা ক্ষুদেবার্তা খাগড়াছড়ির সাধারণ ভোটার মহলে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। তার এ ক্ষুদে বার্তাকে ডিজিটাল প্রচারণা হিসেবেই দেখছেন জেলার সচেতন ভোটাররা।

নির্বাচনী প্রচারণার এ নতুন ধারাকে স্বাগত জানিয়ে খাগড়াছড়ির সংবাদকর্মী প্রদীপ চৌধুরী বলেন, ক্ষুদেবার্তায় ভোট প্রার্থনা খাগড়াছড়িতে এর আগেও আমরা দেখেছি। তবে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এটাই প্রথম ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এটা সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে পদক্ষেপ তার অনন্য দৃষ্টান্ত। অন্য প্রার্থীদেরও এমন ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে সম্পৃক্ত হওয়া উচিত বলেও মনে করেন তিনি।

ব্যবসায়ী মো. আরিফ হোসেন বলেন, ভোটারদের কাছে না গিয়ে এসএমএসে ভোট প্রার্থনা অভিনব পদ্ধতি। ডিজিটাল এ পদ্ধতির ফলে সময়ও বাঁচে, প্রচারণাও হয়।

গৃহিণী ফারজানা আকতার বলেন, এসএমএস দিয়ে ভোট চাওয়ার ঘটনা এবারই দেখছি। তবে এটা ভালো মনে হয়েছে।

জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মো. সোলায়মান আলম শেঠ বলেন, খাগড়াছড়ির ৯টি উপজেলা ও তিনটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ সংসদীয় আসনে প্রচারণার নির্ধারিত সময়ে একজন প্রার্থীর পক্ষে সকল ভোটারদের কাছে পৌঁছানো সম্ভব নয়। সে চিন্তা থেকেই ভোটারদের মুঠোফোনে খুদেবার্তায় ভোট চাইছি। আমি বিশ্বাস করি ভোটাররা আমার এ ক্ষুদেবার্তার মূল্যায়ন করে লাঙ্গল প্রতীকে তাদের মূল্যবান ভোট দেবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না