সাম্প্রতিক

যে সব রোগ প্রতিরোধ করে ভিটামিন ‘সি’

স্বাস্থ্য ডেস্ক : ভিটামিন সি আমাদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা সক্রিয় রাখে। ঠাণ্ডা ও সর্দি হলে প্রচুর ভিটামিন সি খাওয়া উচিত আমরা সবাই জানি দেহের ক্ষত নিরাময়ে সহায়ক একটি উপাদান হচ্ছে ভিটামিন সি। তাছাড়া এ ভিটামিন বিভিন্ন উদ্ভিজ্জ উৎস থেকে আয়রন শুষে নিতে সহায়তা করে পানিতে দ্রবণীয় এ ভিটামিন।

বলাই বাহুল্য, ভিটামিন সি হচ্ছে এমন একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট টক্সিন, প্রবেশকারী দূষণ ও ফ্রি রেডিক্যালসের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে শরীরকে বাঁচায়। আমরা অনেকেই জানি না, এটি এমন একটি ভিটামিন, যা কিনা অন্যান্য ভিটামিনের মতো শরীরে জমা থাকে না। ফলে রোজই কোনো না কোনো উৎস থেকে এটি গ্রহণ করা বাঞ্ছনীয়। পর্যাপ্ত ভিটামিন সির অভাবে দাঁতের মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া, অলসতা, হাড়ে ও জয়েন্টে ব্যথা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে।

অনেকের ধারণা রোগীদের অস্ত্রোপচার হয়েছে, তাদের টক খাওয়া উচিত না। কিন্তু এ ধরনের রোগীর জন্য ভিটামিন সি ভীষণ উপকারী। তবে পরিমিত পরিমাণের বেশি ভিটামিন সি গ্রহণে দেখা দিতে পারে ডায়রিয়া, পেটে ব্যথা ও পেট ফাঁপা ইত্যাদি সমস্যা।

জেনে রাখা ভালো—

১.ভিটামিন সির ভালো উৎস হচ্ছে— সাইট্রাস ও বেরিজাতীয় ফল, সবুজ পাতাযুক্ত সবজি, কাঁচামরিচ, টমেটো ও ফলের রস। স্ন্যাকস, স্মুদি ও সালাদ হিসেবে ভিটামিন খাওয়া যেতে পারে ব্রোকলি, লেটুস, শাক, শসা, টমেটো, আঙুর, আমড়া, পেয়ারা, কামরাঙা ইত্যাদি।

২.ভিটামিন সি আমাদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা সক্রিয় রাখে। ঠাণ্ডা ও সর্দি হলে প্রচুর ভিটামিন সি খাওয়া উচিত। ভিটামিন সি খাদ্যের আয়রন শুষে নিতে সহায়তা করে, যা পরবর্তীতে শরীরকে সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে প্রস্তুত করে।

৩.যাদের উচ্চরক্তচাপ রয়েছে, তাদের রোজ ভিটামিন সি খাওয়া উচিত। এতে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে ও ভালো বোধ হয়।

৪.ক্যান্সার প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে ভিটামিন সি। ভিটামিন সি গ্রহণ করে এড়ানো সম্ভব ফুসফুস, মুখ, গলা, পেট ও কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি।

সূত্র: ওয়েবএমডি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না

error: Content is protected !!