যেসব আচরণে বুঝবেন সঙ্গী স্বার্থপর

ভালোবাসা স্বর্গ থেকে আসে। তাই ভালোবাসার সঙ্গে স্বার্থপর শব্দটি একবারেই যায় না। তবুও অনেক কাছে অভিযোগ পাওয়া যায় যে, সঙ্গী স্বার্থপর। তবে কোনো সম্পর্কের মাঝে যদি স্বার্থ থাকে তবে সেই সম্পর্ক কখনোই টেকে না। তাই সম্পর্ক হওয়া চাই স্বার্থমুক্ত।

মনে রাখবেন সম্পর্কে ছাড় দেয়ার বা মানিয়ে নেয়ার মানসিকতা না থাকলে সেই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখা মুশকিল হয়ে দাঁড়ায়। একজনের স্বার্থপরতার প্রভাব পড়ে অপরজনের ওপরেও। হতাশা, আত্মবিশ্বাসহীনতা তখন জেঁকে বসে।

তাই স্বার্থপর সঙ্গী থেকে দূরে থাকুন।আসুন জেনে নেই যেসব আচরণে বুঝবেন সঙ্গী স্বার্থপর।

মতামতের গুরুত্ব

স্বার্থপর সঙ্গী কখনো আপনার মতামতের গুরুত্ব দিবে না। স্বার্থপর মানুষেরা সব সময় যে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় নিজেকে গুরুত্ব বেশি দিয়ে থাকে। সবকিছুই তার মনের মতো, ইচ্ছা মতোই হতে হয়, আপনার মতামতের কোনো গুরুত্বই সেখানে নেই?

ইতিবাচক সিদ্ধান্ত

আপনাদের মধ্যে বেশিরভাগ সময়ই নেগেটিভ বা নিউট্রাল বিষয় নিয়ে কথা হয়? ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা বিশেষ হয় না? স্বার্থপর মানুষরা এটা করে থাকেন। এদের সঙ্গে সম্পর্কে না থাকাই ভালো।

ভীষণ স্বার্থপর

সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী করতে ও পরবর্তী পর্যায়ে নিয়ে যেতে সব চেষ্টা আপনাকেই করতে হয়? আপনার সঙ্গী কোনো চেষ্টাই করেন না? তাহলে আপনি ভীষণ স্বার্থপর একজন মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন।

দায়বদ্ধতা

স্বার্থপর সঙ্গী সম্পর্কের দায়বদ্ধতা নিতে চান না? অতিরিক্ত স্বার্থপর মানুষরা কখনই কোনো সম্পর্কে জড়াতে পারেন না।

আচরণ

আপনার সঙ্গী কি আপনার উপস্থিতিতেই অন্যদের সঙ্গে এমন আচরণ করেন যা আপনার পছন্দ নয়? এবং এটি জেনেও তিনি বিরত থাকেন না? তবে তিনি নিঃসন্দেহে স্বার্থপর।

ভুল স্বীকার

স্বার্থপর মানুষরা কখনই নিজের ভুল স্বীকার করে না। কখনই তারা নিজেদের কোনো কাজও ফলের দায় নিতে চায় না। আপনার সঙ্গী কি এমনটা

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না