২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর সম্মানহানীর প্রতিবাদে আলমডাঙ্গাতে বিক্ষোভ ও সমাবেশ

প্রতিনিধি :
শরিফুল ইসলাম রোকন
আপডেট :
জুন ১৩, ২০২২
25
বার খবরটি পড়া হয়েছে
শেয়ার :
| ছবি : 

ভারতে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর সম্মানহানীর প্রতিবাদে আলমডাঙ্গাতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৩ জুন সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টায় আসরের নামাজের পরে পশুহাট মসজিদ বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে স্বাধীনতা স্তম্ভর কাছে শেষ হয়। পরে স্বাধীনতা স্তম্ভর কাছে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় ।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ আলমডাঙ্গা থানা শাখার সভাপতি মাওলানা আকরাম হোসেন সাইরাফীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিল পরবর্তী সমাবেশে পবিত্র কোরআন তেলায়াতের মাধ্যমে শুরু হয়, কোরআন তেলায়াত করেন হাফেজ আনাস। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার অন্যতম সদস্য মাওলানা জহুরুল ইসলাম আজিজী।

ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন বাংলাদেশ জেলা শাখার সেক্রেটারী মাওলানা সাইফুল ইসলামের উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ থানা শাখার সহ সভাপতি আমিনুল হক, সেক্রেটারী ডাঃ ওয়ালিদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ফারুক হোসেন, প্রচার সম্পাদক মাওলানা মাহমুদুল হক, উপজেলা মসজিদের খতিব, মাওলানা মাসুদ কামাল, আনন্দধাম মসজিদের খতিব মাওলানা ইমদাদুল হক, বামুক সভাপতি মাস্টার খাজা মইনুদ্দীন, সেক্রেটারী শরিফুল হক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ আলমডাঙ্গা পৌর সভাপতি তানভিরুল হক জসেফ, মীর শফিকুল ইসলাম, মুফতি আব্দুস সালাম ও মুফতি সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন যে, ভারতে বিজেপি সরকারের মুখপাত্র নূপুর শর্মা কর্তৃক বিশ্ব মানবতার শান্তির দূত মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) সম্পর্কে তীব্র অশালীন মন্তব্য করে সমগ্র বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর হৃদয়ে রক্তক্ষরণ ঘটিয়েছে। বাকস্বাধীনতার নামে এমন জঘন্যতম অন্যায় কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। বিশ্ব নবীর অবমাননার ঘটনা চরম অসভ্যতাকেও হার মানিয়েছে। যে কারণ ইতোমধ্যে সমগ্র বিশ্বে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। মুসলমানরা তাদের নবীকে নিজের জীবনের চেয়েও বেশি ভালোবাসে। বিশ্ব নবীর মর্যাদা রক্ষায় নেই নিজের জীবন বিলিয়ে দিতেও পিছপা হয়না। এরই প্রেক্ষিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দাবী করে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ভারত সরকারের উপর কূটনীতিক চাপ সৃষ্টি করে এবং সংসদে তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিজেপি সরকারকে উচিত শিক্ষা দিতে হবে। এছাড়াও বক্তারা বাংলাদেশের দুই বৃহৎ দল বিএনপি ও আওয়ামীলীগের সমালোচনা করে বলেন বাংলাদেশের পক্ষে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রথম সারিতে তাদের থাকার কথা ছিল। অথচ তারা বাংলাদেশের মানুষকে নিয়ে রাজনীতি করে কিন্তু গণমানুষের চাওয়া পাওয়ার প্রতিফলন তাদের আচরণে প্রকাশ পায় না। তারা আরও বলেন যে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ গণমানুষের সাথে ছিল,আছে এবং থাকবে ইনশাআল্লাহ।

সর্বশেষ খবর
menu-circlecross-circle linkedin facebook pinterest youtube rss twitter instagram facebook-blank rss-blank linkedin-blank pinterest youtube twitter instagram