সাম্প্রতিক

দামুড়হুদায় বোনের ইভটিজিঙের প্রতিবাদ করায় বখাটের খুরের পোচে ভাই রক্তাক্ত জখম : মামলা

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদায় ছোট বোনের ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় বখাটে যুবক হাসানের খুরের পোচে স্কুলছাত্রীর বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া বড়ভাই তাফসীর (২৪) রক্তাক্ত জখম হয়েছে। রক্তাক্ত জখম তাফসীরকে চিৎলা হাসপাতলে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত তাফসীরের পিতা বাদী হয়ে দামুড়হুদা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় দামুড়হুদার দেউলী গ্রামে ওই ইভটিজিঙের ঘটনা ঘটে।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা দেউলী গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে বখাটে যুবক হাসান (২০) একই গ্রামের ডা. মফিদুল ইসলামের মেয়ে দামুড়হুদা পাইলট গালর্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে যৌন নিপীড়ন করে আসছিলো। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে সে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফেরার সময় বখাটে যুবক হাসান তাকে যৌন হয়রানি করতে থাকে। স্কুলছাত্রী ভয়ে দৌড়ে বাড়িতে পৌঁছানোর চেষ্টা করে। বখাটে যুবক হাসানও তার পিছু নেয় এবং স্কুলছাত্রীর বাড়ির সামনে গিয়ে বাজে বাজে টোন করতে থাকে। স্কুলছাত্রী বিষয়টি তার বড় ভাই তাফসীরকে জানায়। তাফসীর বাড়ি থেকে বেরিয়ে ওই ঘটনার প্রতিবাদ করে এবং দুজনের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এ সময় বখাটে যুবক হাসান তার পকেটে থাকা খুর বের করে তাফসীরের মাথার পেছন দিকে সজোরে পোচ মেরে পালিয়ে যায়। খুরের পোচে রক্তাক্ত জখম তাফসীরকে তাৎক্ষণিক দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (চিৎলা হাসপাতালে) নেয়া হয়। তার মাথায় একাধিক সেলাই দেয়া লেগেছে। এলাকাবাসী বলেছে, বখাটে যুবক হাসান সারাদিন বাইসাইকেল চোড়ে পো পো করে ঘুরে বেড়ায় আর বিভিন্ন মেয়ের ইভটিজিং করে। মাঝে মাঝে রাজমিস্ত্রির জোগালের কাজে যায়। বখাটে যুবক হাসানের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।