সাম্প্রতিক
চুয়াডাঙ্গায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা : ঘাতক স্বামী আটক
চুয়াডাঙ্গায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা : ঘাতক স্বামী আটক

চুয়াডাঙ্গায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা : ঘাতক স্বামী আটক

চুয়াডাঙ্গায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা : ঘাতক স্বামী আটক

চুয়াডাঙ্গায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা : ঘাতক স্বামী আটক

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ঃ চুয়াডাঙ্গায় ঘরে ঢুকে স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা করেছে যৌতুকলোভী এক ঘাতক স্বামী। ঘটনার পরপরই পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে ঘাতক স্বামী আকাশ ওরফে মিঠু। গত বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলার মহাম্মদজমা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত তহমিনার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। যৌতুক না পেয়ে ক্ষুব্ধ স্বামী মিঠু রাতের অন্ধকারে শ্বশুরবাড়িতে এসে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে পুলিশ জানায়।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ানের মহাম্মদজমা গ্রামের দিনমজুর সবোদ আলীর মেয়ে তহমিনা খাতুন ওরফে তহুরার (২৩) সাথে নয় মাস আগে পার্শ্ববর্তী আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা ইউনিয়ানের  তিয়রবিলা গ্রামের রমজান গাজীর ছেলে আকাশ ওরফে মিঠুর দ্বিতীয় বিয়ে হয়। বিয়ের সময় মিঠুকে ৭০ হাজার টাকা যৌতুক দেন দরিদ্র সবোদ আলী। এরপরও মিঠু এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পাশের বাড়ি ভূতে ধরা রোগী দেখতে যায় তহমিনার পিতার বাড়ির লোকজন। এই সুযোগে গোপনে ঘরে ঢুকে বিছানার ওপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে স্ত্রী তহমিনাকে হত্যা করে ঘাতক মিঠু। তহমিনার গোঙানি শব্দ শুনে পাশের বাড়ি থেকে পরিবারের লোকজন ছুটে এলে মিঠু ঘর থেকে পালিয়ে যায়।
ঘটনার পর ঘাতক স্বামী তার নিজ গ্রাম তিয়রবিলা স্থানীয় ফাঁড়ি পুলিশের হাতে আটক হয়।
তহমিনার পিতা সবোদ আলী অভিযোগ করেন, বিয়ের পর তাকে ৭০ হাজার টাকা যৌতুক দেয়া হয়েছে। এরপরও সে আরও এক লাখ টাকার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকিধামকি দিয়ে আসছিল।
এলাকার অনেকেই জানিয়েছেন, মিঠু সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। এর আগে সে কয়েকবার জেলও খেটেছে। চরমপন্থিদের সঙ্গে তার সখ্য আছে। বিভিন্ন থানায় তার নামে মামলাও রয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা সদর থানা ওসি তোজাম্মেল হক জানান, ঘাতক স্বামীকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।