সাম্প্রতিক

ক্ষতিকর বর্জ্য পলিথিন দিয়ে পেট্রল ও ডিজেল তৈরী করে তাক লাগিয়েছেন গাংনীর জসিম উদ্দিন টুটুল

রাকিবুল ইসলাম কবি,গাংনী প্রতিনিধি: ক্ষতিকর বর্জ্য পলিথিন দিয়ে পেট্রল ও ডিজেল তৈরী করে তাক লাগিয়েছেন গাংনীর হেমায়েতপুরের সুত্রধর জসিম উদ্দিন টুটুল। প্রযুক্তি হিসেবে ব্যবহার করেছেন টিনের তৈরি ড্রাম প্লাস্টিকের মুখ ও কয়েকটি বোতল।

আর এ দিয়ে চলছে মটরবাইক ও ইঞ্জিন চালিত সেচ পাম্প। তবে প্রযুক্তিগত সহায়তা না থাকায় তিনি এ পেট্রোল ও ডিজেল বাজারজাত করতে পারছেননা। তিনি সরকারি সহযোগিতা কামনা করেছেন।

জসিম উদ্দিন টুটুল জানান, সম্প্রতি ইউটিউবে পলিথিন থেকে কিভাবে পেট্রোল তৈরী করা যায় তা দেখে উদ্বুদ্ধ হন। পরে বাজারের উচ্ছিষ্ট পলিথিন কুড়িয়ে জমা করেন। বাজার থেকে একটি টিনের ড্রাম ও কয়েকটি বয়েম জোগাড় করেন। বাড়িতে বসে তিনি স্থানীয়ভাবে নির্মিত চুলার উপরে টিনের ড্রাম বসিয়ে তাতে পলিথিন ভরে তাপ দেন। ড্রাম থেকে সংযুক্ত পাইপের মাধ্যমে বেরিয়ে আসে ফোটায় ফোটায় তেল।

এক কেজি পলিথিন থেকে প্রায় ৭৫০ গ্রাম জ্বালানি উৎপাদিত হচ্ছে। এর মধ্যে ৩০০ গ্রাম পেট্রোল আর ৪৫০ গ্রাম ডিজেল। এটি অত্যান্ত পরিশোধিত জ্বালানি। সরকার যদি প্রতিটি জেলায় তেল পরিশোধন মেশিন দিয়ে সহায়তা করে তাহলে আমার মত অনেক যুবকই এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বাবলম্বী হতে পারবে।

জসিন উদ্দিন টুটুলের সহধর্মীনি ফেন্সি জানান, তার স্বামী পেশায় একজন সুত্রধর। তাই ১৪ কিলোমিটার পথ পারি দিয়ে গাংনী শহরে কাজ করেন। মাঝে মধ্যে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বিভিন্ন উদ্ভাবনী বিষয়ে খোঁজ খবর নেন। সম্প্র্রতি দেশের উত্তারঞ্চলে পেট্রোল তৈরীর বিষয়টি অবগত হন। তারপর শুরু হয় পেট্রোল ওডিজেল তৈরীর কার্যক্রম।

বিষয়টি নিয়ে এলাকায় অনেকে হাসি তামাশা করলেও এখন অনেকেই বাহবা দিচ্ছেন। কেউবা অর্থ সহায়তা দেওয়ার জন্য আগ্রহি হয়ে উঠেছেন। বর্তমান প্রয়োজন একটি রিফাইনারি মেশিন।

হেমায়েতপুুরের মটরসাইকেল চালক মওলা জানান, তিনি এ পেট্রোল ব্যবহার করেছেন। মটরসাইকেল চললেও মাঝে মাঝে একটু সমস্যা হচ্ছে। তেলটি রিফাইন করা হলে আর কোন সমস্যা থাকবেনা। একই কথা জানালেন সেচপাম্প মালিক আঃ মান্নান।

তিনি তার তিনটি সেচপাম্প চালাচ্ছেন এই ডিজেল দিয়ে।গাংনী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম জানান, এটি একটি চমকপ্রদ ব্যাপার। এ প্রযুক্তির সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন ঘটিয়ে পলিথিন বর্জ্যরে সঠিক ব্যবহার করে এবং তা থেকে তেল উৎপাদনের মাধ্যমে জ্বালানির চাহিদা মেটানো সম্ভব।

x

Check Also

সহযোগিতা ছাড়া পৃথিবীতে কোন মহৎ ও বৃহৎ কাজ করা সম্ভব না- আলমডাঙ্গার ইউএনও

মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও স্থানীয় সন্মানীত ব্যক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় সভা করলেন আলমডাঙ্গা উপজেলার সদ্য যোগদানকারি নির্বাহি ...