সাম্প্রতিক

এসআই অচীন্ত কুমার পাল চোরাই মোটরসাইকল ক্রয় করে গ্যাঁড়াকলে

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা থানার কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই অচীন্ত কুমার পাল চোরাই মোটরসাইকল ক্রয় করে গ্যাঁড়াকলে । চোরাই গাড়ি কেনার অভিযোগে ২১ মে অচীন্তকে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।

ফুলবাড়ি বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা কার্পাসডাঙ্গা বাজারের আল আমীনের গ্যারেজে ইন্ডিয়ান টানা চোরাই একটি এফজেডএস-২৫০ সিসি ভার্সন ২ মোটরসাইকেল আটক করে। আটকের পর গ্যারেজ মালিক আল আমীন জানায়, মোটরসাইকেলটি কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ক্যাম্পের আইসি  এসআই অচীন্ত কুমার পালের।

এসআই অচীন্ত তার গাড়ি আটকের সংবাদ পেয়ে দ্রুত  গ্যারেজে উপস্থিত হন। তিনি মোটরসাইকেল সম্পর্কে নানা যুক্তি তুলে ধরতে থাকেন। তবে অচীন্তের কোন যুক্তিই বিজিবি কর্ণপাত করেনি। বরং মোটরসাইকেলসহ গ্যারেজ মালিক আল আমীনকে আটক করে থানায় সোপর্দ করে।

এ ঘটনার সত্যাসত্য যাচাই হওয়ার পর চোরাই মোটরসাইকেল কেনায় জড়িত থাকার অভিযোগে অচীন্ত কুমার পাল ও লিটন নামের এক পুলিশ, সদস্যকে রাতেই চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়।

এ বিষয়ে দামুড়হুদা থানার অফিসার ইনচার্জ সুকুমার কুমার বিশ্বাস জানান, কার্পাসডাঙ্গা বাজারের আলামীনের গ্যারেজ থেকে বিজিবি একটি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করেছে। গাড়িটি অচীন্ত কুমার পাল কিনেছিলেন জেনে তাকে ক্লোজ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

  জানা গেছে, অচীন্ত কুমার পাল কিছুদিন আগে আলমডাঙ্গার জামজামী পুলিশ ক্যাম্পের আইসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। প্রায় ১ মাস আগে তিনি দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়িতে বদলি হয়ে যান। গিয়েই ভারত থেকে চোরাই পথে আসা এফজেডএস-২৫০ মোটরসাইকেলটি মাত্র ৭০ হাজার টাকায় কিনে নেন। কিনে তা আল আমীনের গ্যারেজে রাখেন।

x

Check Also

আলমডাঙ্গা নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে জনপ্রতিনিধি ও কর্মকর্তাবৃন্দের মতবিনিময় সভায় -এমপি ছেলুন

আলমডাঙ্গা নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন আলীর সাথে জনপ্রতিনিধি ও কর্মকর্তাবৃন্দের মতবিনিময় সভায় চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের ...