সাম্প্রতিক
আলমডাঙ্গা শহরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও উন্নয়নে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু
আলমডাঙ্গা শহরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও উন্নয়নে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু

আলমডাঙ্গা শহরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও উন্নয়নে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু

আলমডাঙ্গা শহরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও উন্নয়নে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু

আলমডাঙ্গা শহরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও উন্নয়নে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু

আলমডাঙ্গা শহরকে সম্ভাব্য জঙ্গি হামলার আশঙ্কামুক্ত, অপরাধমুলক কর্মকান্ড প্রতিহত করতে ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে। সমস্ত শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সিসি ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গতকাল শহরে জনসচেতনতামূলক মাইকিং করে রাত ৮টার পর শিক্ষার্থিদের শহরে ঘোরাঘুরি, রাত সাড়ে ১১টার পর ব্যবসায়িদের বাইরে অবস্থানে নিষেধাজ্ঞা ও ভাড়াটিয়াদের সম্পর্কে অবিলম্বে থানায় তথ্য জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করে এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, সম্প্রতি ঢাকার গুলশান ট্র্যাজেডির পর থেকে দেশব্যাপি জঙ্গি হামলার আতঙ্ক বিরাজ করছে। সারা দেশের মত আলমডাঙ্গাবাসির মনেও এ আতঙ্ক বিরাজমান। আলমডাঙ্গা শহরকে সম্ভাব্য জঙ্গি হামলার আশঙ্কামুক্ত, অপরাধমুলক কর্মকান্ড প্রতিহত করতে ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা শুরু করেছে। সমগ্র শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও স্থাপনায় সিসি ক্যামেরা বসানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পৌর এলাকার অপরাধপ্রবণ এলাকায়ও সিসি ক্যামেরা স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ ম্যাগা প্রকল্পের ব্যায় আলমডাঙ্গা পৌরসভা ও আলমডাঙ্গা বণিক সমিতি বহন করবে। এ ব্যাপারে পৌর মেয়র ও বণিক সমিতির নেতৃবৃন্দের সাথে কয়েক দফা আলোচনা মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে থানা অফিসার ইনচার্জ জানিয়েছেন। এছাড়া আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার শহরে দিনব্যাপি মাইকিং করা হয়েছে। রাত রাত ৮টার পর শিক্ষার্থিদের শহরে ঘোরাঘুরি, রাত সাড়ে ১১টার পর ব্যবসায়িদের বাইরে অবস্থান করতে কঠোরভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করে দিনব্যাপি এ মাইকিং করা হয়। ব্যাবসায়িদের সাথে থানা পুলিশ আলোচনা সাপেক্ষে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে থানা অফিসার ইনচার্জ জানান। একই সাথে সত্ত্বর নতুন ও পুরাতন ভাড়াটিয়া, ছাত্রাবাস কিংবা মেসে অবস্থানকারিদের তথ্য থানায় জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া লাইসেন্সবিহীন মোটর সাইকেল ব্যবহার ও এক মোটর সাইকেলে একসাথে ৩ জন চড়ার বিষয়েও সতর্ক করা হয়েছে।
আলমডাঙ্গার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নয়নে বিভিন্ন ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করে ইতোমধ্যেই আলোচিত হয়ে উঠেছেন থানা অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও উন্নয়নে সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে। তিনি এ ব্যাপারে পুলিশের প্রতি সকলকে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করতে অনুরোধ জানিয়েছেন।