সাম্প্রতিক
আগ্নেয়াস্ত্রসহ আলমডাঙ্গায় আটক মিরপুরের ২ সন্ত্রাসীর স্বীকারুক্তি
আগ্নেয়াস্ত্রসহ আলমডাঙ্গায় আটক মিরপুরের ২ সন্ত্রাসীর স্বীকারুক্তি

আগ্নেয়াস্ত্রসহ আলমডাঙ্গায় আটক মিরপুরের ২ সন্ত্রাসীর স্বীকারুক্তি একজনকে ফাঁসাতে অস্ত্র ক্রয় করছি

আগ্নেয়াস্ত্রসহ আলমডাঙ্গায় আটক মিরপুরের ২ সন্ত্রাসীর স্বীকারুক্তি

আগ্নেয়াস্ত্রসহ আলমডাঙ্গায় আটক মিরপুরের ২ সন্ত্রাসীর স্বীকারুক্তি

আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ অস্ত্রসহ কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার লুৎফর রহমান ও নাদিম আলী নামের দুই সন্ত্রাসীকে আটক করেছে। সোমবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আলমডাঙ্গার মোনাকষা মোড় থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। মিরপুরের পল্লি ঝুটিয়াডাঙ্গার বাবুল ওরফে বাবুকে ফাঁসাতেই ৫ হাজার টাকায় তারা এ আগ্নেয়াস্ত্র কিনেছে বলে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়।

পুলিশ জানায়, কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার আমলা গ্রামের মৃত মধু মন্ডলের ছেলে লুৎফর রহমান (৫৮) ও একই উপজেলার মুচাইনগর গ্রামের রেজাইল হকের ছেলে নাদিম আলী (৪৫) এলাকার চিহ্নত সন্ত্রাসী। গতকাল সোমবার সকালে তারা দুইজন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মিরপুর উপজেলা কামান্ড লেখা সিএনজিচালিত অটোরিক্সাযোগে আলমডাঙ্গায় যাচ্ছিলেন। সে সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আলমডাঙ্গা থানার এসআই টিপু সুলতান সঙ্গীয়ফোর্স নিয়ে তাদের আটক করে। আটকের পর অটোরিক্সা তল্লাশি করে একটি শপিং ব্যাগের ভেতর একটি শাটারগান উদ্ধার করে। পরে তাদেরকে থানা নিয়ে যাওয়া হয়।

 

থানায় জিজ্ঞাসাবাদে তারা উভয়ে জানিয়েছেন, মিরপুর উপজেলার ঝুটিয়াডাঙ্গার বাবুল ওরফে বাবুকে ফাঁসাতেই তারা ভেড়ামারা এলাকার এক মাছ ব্যবসায়ির নিকট থেকে উদ্ধারকৃত আগ্নেয়াস্ত্রটি ৫ হাজার টাকায় কেনেন। মিরপুর অঞ্চলের একটি বিলের মাছের প্রায় ১২/১৩ লাখ টাকা আত্মস্মাত করে ঝুটিয়াডাঙ্গার বাবুল ওরফে বাবু এখন আলমডাঙ্গা শহরে অবস্থান করে। তাকে ফাঁসাতেই ২ সন্ত্রাসী আলমডাঙ্গায় আসছিল।

এলাকাসূত্রে জানা যায়, ধৃত লুতফর রহমান আমলা সরকারি কলেজের নৈশপ্রহরী। অনেকেই লুতফর রহমানসহ ধৃত ২ জনের বিরুদ্ধে অস্ত্রব্যবসার অভিযোগ তুলেছেন। ঝুটিয়াডাঙ্গার অনেকেই লুতফর রহমান সম্পর্কে বলতে গিয়ে জানিয়েছেন, ধৃত লুতফর রহমান নতুন করে মুক্তিযোদ্ধা বানিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এলাকার অনেকের নিকট থেকে টাকা নিয়ে নয়ছয় করছে। বেশিরভাগ ব্যক্তি দাবি করেন, লুতফর পুলিশের নিকট সত্য কথা স্বীকার করেনি। তারা জানান, ধৃত লুতফর রহমানের সাথে আলমডাঙ্গার মধু ব্যাধের স্ত্রী প্রতিমার পরকীয়ার সম্পর্ক। বিষয়টি কমবেশি অনেকেই অবহিত বলে দাবি করা হয়। প্রেমিকার স্বামী মধুকে ফাঁসাতেই সে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে আলমডাঙ্গায় যাচ্ছিল। পুলিশ সতর্কতার সাথে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই আসল তথ্য বের হয়ে আসবে বলে তারা দাবি করেন।

আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেন বলেন, খুলনা রেঞ্জে নতুন ডিআইজ যোগদান করেই সাত দিনের বিশেষ অভিযান পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় সোমবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শাটারগানসহ কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার সন্ত্রাসী লুৎফর ও নাদিমকে আটক করা হয়েছেে। তাদের বিরুদ্ধে অন্যান্য থানায় মামলা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আলমডাঙ্গা থানায় তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইন মামলার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আজ সোমবার সংশ্লিষ্ট মামলায় তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হতে পারে।