সাম্প্রতিক

মেহেরপুরে তাহের ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

মেহেরপুরে তাহের ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসার কারণে রিমা খাতুন (২০) নামের প্রসূুতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শনিবার দুপুরে সিজারিয়ান অপারেশন করার পর রাত ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

নিহত রিমা খাতুন গাংনী উপজেলার হিজলুবাড়িয়া গ্রামের মোল্লাপাড়ার রফিকুল ইসলামের মেয়ে এবং একই উপজেলার তেঁতুলবাড়িয়া ইউনিয়নের রামদেবপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের স্ত্রী। রিমা খাতুনের ফুফা মারুফুল ইসলাম অভিযোগ করে জানান, রিমার প্রসব বেদনা শুরু হলে এ দিন সকালে তাকে মেহেরপুরের তাহের ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। দুপুর ১২ টার দিকে ক্লিনিক মালিত ডাঃ আবু তাহের নিজেই সিজারিয়ান অপারেশন করান। অপারেশন থিয়েটার থেকে বের করার পর থেকেই রিমা যন্ত্রনায় কাতরাতে থাকে।

পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৮টার দিকে মারা যায়। তিনি আরও বলেন, ভুল অপারেশন করার কারণেই তাদের মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ডাঃ তাহেরের বিচার চেয়ে মামলা দায়ের করা হবে।

রিমার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, রিমার মৃত্যুর সংবাদ শুনে লাশ আনতে যাওয়া যাওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে ঠিক তখনই তাহের ক্লিনিকের নিজস্ব অ্যাম্বুলেন্সে করে রিমার লাশ বাড়িতে পৌছে দেওয়া হয়। এসময় স্থানীয়রা ক্ষুব্ধ হয়ে অ্যাম্বুলেন্স চালক ও অ্যাম্বুলেন্সটি আটকিয়ে রাখে। অভিযুক্ত ডাঃ আবু তাহের বলেন, দুপুর ১২ টার দিকে রিমার সিজারিয়ান অপারেশন করার পর একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। মা ও পুত্র দুজনেই সুস্থ ছিলো। সন্ধ্যার সময় গাংনীতে রুগী দেথতে গিয়ে শুনি রিমা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। সেখান থেকে ফিরে এসে তাকে চিকিৎসা দিয়েও বাঁচানো সম্ভব হলো না।

মেহেরপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ শামীম আরা নাজনীন জানান, এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খান বলেন, রিমার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দেওয়া হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উল্লেখ্য,২০১৮ সালের ১২ সেপ্টম্বর মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল খালেককের শরীরে ভুল ইনজেকশন পুশ করে তার মৃত্যুর অভিযোগ করে স্বজনরা। এক পর্যায়ে এঘটনায় নিহত আব্দুল খালেকের স্বজনরা তাহের ক্লিনিক ভাংচুর করে।