সাম্প্রতিক

বিস্কুট খাইয়ে অচেতন করে টাকা ছিনতাই : আটক ৩

damurhuda-pic.-18.03-1-660x330দামুড়হুদা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা রেলস্টেশন থেকে ইজিবাইকযোগে দামুড়হুদার জয়রামপুর স্টেশনস্থ গুড়ের হাটে আসার সময় আবু সাঈদ (৫০) এবং আলেপ উদ্দিন (৫৫) নামের ২ গুড়ব্যবসায়ী অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়েছেন। অজ্ঞানপার্টির সদস্যরা ওই দুই গুড়ব্যবসায়ীকে বিস্কুট খাইয়ে অচেতন করার পর কাঁঠালতলা থেকে প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় অজ্ঞান পার্টির ৩ সদস্য রংপুর জেলার আব্দুল্লাহপুর গ্রামের ফুল মিয়া (৪০), নাটোর জেলার গালিশপুর বাগাদিপাড়ার সানোয়ার হোসেন (৪২) এবং টাঙ্গাইল জেলার বহুলি গ্রামের আব্দুর রহিম ওরফে সুমনকে (৪০) আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় লোকজন। সেইসাথে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়া ওই দু গুড়ব্যবসায়ীকে অচেতন অবস্থায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া গুড়ব্যবসায়ী সাইদের দোলাভাই লুৎফর রহমান বাদী হয়ে আটক ৩ জনসহ অজ্ঞাতনামা আরও একজনের নামে দামুড়হুদা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। গতকাল শনিবার সকাল ৬টার দিকে জয়রামপুর কাঁঠালতলায় ওই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, সিরাজগঞ্জ জেলার চরসাতবাড়িয়া গ্রামের গুড়ব্যবসায়ী আবু সাঈদ (৫০) এবং একই উপজেলার বালসাবাড়ি গ্রামের আলেপ উদ্দিন (৫৫) প্রায় ২০-২৫ বছর ধরে জয়রামপুর হাটে গুড় কিনতে আসে। ওই দু গুড়ব্যবসায়ী গতকাল শনিবার ভোররাতে জয়রামপুর গুড়ের হাটে গুড় কেনার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। তারা উভয়ই ট্রেনযোগে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে চুয়াডাঙ্গায় পৌঁছান। চুয়াডাঙ্গা রেলস্টেশন থেকে ইজিবাইকযোগে জয়রামপুর স্টেশনস্থ গুড়ের হাটের উদ্দেশে রওনা হন। অজ্ঞান পার্টির ৪ সদস্য ওই দু গুড়ব্যবসায়ীর পিছু নেয় এবং ট্রেনের মধ্যে খাতির জমানোর চেষ্টা করে। অজ্ঞান পার্টির ৪ সদস্যসহ ওই দু গুড়ব্যবসায়ী একই সাথে চুয়াডাঙ্গা রেলস্টেশনে নামে এবং একই ইজিবাইকযোগে জয়রামপুর গুড়ের হাটের উদ্দেশে রওনা হয়। এর মধ্যে একজন সদস্য চুয়াডাঙ্গা কোর্টমোড়ে নেমে যায়। অজ্ঞানপার্টির অপর ৩ সদস্য পথিমধ্যে ওই দু গুড়ব্যবসায়ীকে বিস্কুট খাইয়ে অজ্ঞান করে ফেলে। ইজিবাইকটি জয়রামপুর কাঁঠালতলায় এসে পৌঁছে বামে ঘোরার সময় অচেতন ওই দু গুড়ব্যবসায়ী ইজিবাইকের মধ্যেই ঢলে পড়ে। ইজিবাইক চালক চুয়াডাঙ্গা সুমুরদিয়ার মকবুল বিষয়টি আঁচ করতে পেরে অজ্ঞানপার্টির সদস্যদের আটকের চেষ্টা করে। এ সময় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা গুড়ব্যবসায়ী আলেপের কাছে থাকা প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।  ইজিবাইক চালকের চিৎকার চেচামেচিতে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসে এবং অজ্ঞানপার্টির সদস্যদের পিছু ধাওয়া করে। স্থানীয় লোকজন অজ্ঞাসপার্টির ৩ সদস্যকে তারানীপুর গ্রামের মাঠে তাড়িয়ে ধরে কাঁঠালতলায় নিয়ে এসে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অচেতন দু গুড়ব্যবসায়ীকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে এবং জনতার হাতে আটক অজ্ঞান পার্টির ওই তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

জয়রামপুর স্টেশন পাড়ার জাহিদ বলেছেন, চুয়াডাঙ্গা ঝোড়াঘাটার সমসের ও মকসেদ নামের দু ব্যক্তি সম্প্রতি অজ্ঞাস পার্টির খপ্পরে পড়েন। ওই দু ব্যক্তি  এখনও পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

ইজিবাইক চালক মকবুল জানান, ওই দু গুড়ব্যবসায়ী আমার পূর্ব পরিচিত। তারা ইতঃপূর্বেও বেশ কয়েকবার আমার ইজিবাইকে জয়রামপুর গুড়ের হাটে এসেছে। গতকাল যখন কাঁঠালতলায় পৌঁছে জয়রামপুর স্টেশনস্থ গুড়ের হাটে যাওয়ার জন্য বামে মোড় নিই তখন ওই দু গুড়ব্যবসায়ী গাড়ির মধ্যে ঢলে পড়ে। বিষয়টি আমি সাথে সাথে স্থানীয় লোকজনকে জানায় এবং টাকা নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় অজ্ঞানপার্টির ওই ৩ সদস্যকে আটক করা হয়।

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আটক অজ্ঞানপার্টির ওই ৩ সদস্যের দেশব্যাপী নেটওয়ার্ক রয়েছে। তারা ঢাকা, রাজশাহী, রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এ ধরনের অপতৎপরতা চালিয়ে আসছিলো। এছাড়া আটক ৩ জনের মধ্যে সুমনের নামে একই ঘটনায় রাজশাহীর পুটিয়া থানায় মামলা আছে। তারা দু গুড়ব্যবসায়ীর মধ্যে একজনের কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে পুলিশ স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় তাদেরকে আটক করে। তাদের কাছ থেকে খোয়া যাওয়া সম্পূর্ণ টাকাই উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়া গুড়ব্যবসায়ী সাইদের দোলাভাই লুৎফর রহমান বাদী হয়ে আটক ৩ জনসহ অজ্ঞাতনামা আরও একজনের নামে দামুড়হুদা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।