সাম্প্রতিক

বিশ্ব ইজতেমায় থাকছে বিশেষ ট্রেন

এবারের বিশ্ব ইজতেমা ১৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। এরই মধ্যে ইজতেমাস্থলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তুরাগ তীরে জমায়েত হতে শুরু করেছেন ধর্মপ্রাণ মানুষ।

আগত মুসুল্লীদের নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিতে বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থাসহ নানা উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এজন্য সুষ্ঠুভাবে ট্রেন চলাচল, বিশেষ ট্রেন পরিচালনা ও বিভিন্ন ট্রেনে অতিরিক্ত কোচ সংযোজন করা হচ্ছে।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ বিভাগ থেকে সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. শরিফুল আলম সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ইজতেমায় আগত মুসুল্লীদের সেবায় রেলওয়ে কর্মসূচির মধ্যে- বিশেষ ট্রেন: ঢাকা-টঙ্গী-ঢাকা: জুম্মা স্পেশাল (১৫ ফেব্রুয়ারি)। ১৬ ফেব্রুয়ারি প্রথম দফা মোনাজাতে, মোনাজাত স্পেশাল ১,২,৩ ও ৪ নামে ৪টি স্পেশাল ট্রেন ঢাকা-টঙ্গীর মধ্যে চালানো হবে। এছাড়া লাকসাম-টঙ্গী ও জামালপুর-টঙ্গী: ২টি (শুধুমাত্র ১৭ ফেব্রুয়ারি) ট্রেন চলাচল করবে।

১৮ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় দফায় আখেরী মোনাজাতের দিন। এদিন ঢাকা-টঙ্গী আটটি, টঙ্গী-ঢাকা আটটি, টঙ্গী-লাকসাম একটি, টঙ্গী-আখাউড়া একটি, টঙ্গী-ময়মনসিংহ চারটি ও টঙ্গী-টাঙ্গাইল দুটি ট্রেন চলাচল করবে। ১২ থেকে ১৮ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতের পূর্ব পর্যন্ত ঢাকা অভিমুখী সব আন্তঃনগর, মেইল এক্সপ্রেস ও লোকাল ট্রেন টঙ্গী স্টেশনে দুই মিনিট করে থামবে।

১৮ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতের দিন সব আন্তঃনগর ট্রেন ও মেইল এক্সপ্রেস ট্রেন (আপ ও ডাউন) টঙ্গী স্টেশনে দুই মিনিট করে থামবে। ইজতেমা উপলক্ষে ১৬ থেকে ১৮ পর্যন্ত সব ডেমু ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে।

এছাড়া বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে মুসল্লীদের নিরাপদ ভ্রমণ নিশ্চিতকরণ, সার্বিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে টঙ্গী, বিমানবন্দর, তেজগাঁও ও কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে জিআরপি, আরএনবি অফিসারসহ প্রয়োজনীয় সংখ্যক ফোর্স মোতায়েন থাকবে।