সাম্প্রতিক

স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে স্বামীর পালায়ন

গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যাকারী তিন সন্তানের জননী রেহেনা বেগমের (৪০) লাশ আমতলী হাসপাতালে রেখে স্বামী বশির হাওলাদার পালিয়ে গেছে।

পুলিশ মঙ্গলবার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে প্রেরন করেছে। ঘটনা ঘটেছে সোমবার রাতে বরগুনার তালতলী উপজেলা পশ্চিম বাদুরগাছা গ্রামে।

জানা গেছে, তালতলী উপজেলার পশ্চিম বাদুরগাছা গ্রামের বশির হাওলাদার ও তার স্ত্রী রেহেনা বেগমের মধ্যে সোমবার দুপুরে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া হয়।

এর সময় স্বামী বশির হাওলাদার স্ত্রীকে অকথ্য গালাগাল করে। স্বামীর অপমান সইতে না পেরে সোমবার সন্ধ্যায় ঘরে থাকা গ্যাস ট্যাবলেট (আলুমিনিয়াম ফসপাইড) খেয়ে রেহেনা বেগম আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়।

স্ত্রীকে বাঁচাতে স্বামী বশির হাওলাদার আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। ওই হাসপাতালে আনার পরে রেহেনার মৃত্যু হয়। স্ত্রীর মৃত্যু নিশ্চিত জেনে স্বামী বশির হাওলাদার হাসপাতাল থেকে সটকে পড়ে।

পাঁচ ঘন্টা রেহেনার লাশ হাসপাতালের বারান্দায় পড়ে থাকে। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে আমতলী থানায় নিয়ে আসে। মঙ্গলবার পুলিশ লাশের ময়না তদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে প্রেরন করেছে। এ ঘটনায় আমতলী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার নিখিল চন্দ্র বলেন, গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যাকারী রেহেনার নিশ্চিত মৃত্যু জেনে স্বামী বশির হাওলাদার স্ত্রী লাশ না নিয়ে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছে। তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে পাইনি।

আমতলী থানার ওসি মোঃ আলাউদ্দিন মিলন বলেন, এ ঘটনার একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে প্রেরন করা হয়। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পরে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।