সাম্প্রতিক

স্ত্রী’র মর্যাদার দাবিতে বিষের বোতল হাতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান

শাহারাস্তিতে স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে বিষের বোতল নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন এক তরুণী। এমন খবরে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। রোববার উপজেলার রায়শ্রী উওর ইউপি’র আনন্দপুরা গ্রামের মাইজের (মিস্ত্রী) বাড়িতে এ ঘটনা  ঘটে। স্ত্রী দাবিদার ওই তরুণীর নাম সালমা। একই এলাকার দহশ্রী গ্রামের আ. মমিনের মেয়ে সে।

সালমা জানান, গত ১০ মাস আগে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে আনন্দপুরার কোরবান আলীর পুত্র আরিফ হোসেন (২৩) এর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। সেই সূত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরপর আরিফ সালমাকে বিয়ের কথা বলে হাজীগঞ্জে নিয়ে যায়। সেখানে একটি সাদা কাগজে সই নিয়ে বিয়ের কাজ সম্পন্ন করে। সালমাকে আপাতত বিয়ের কথা গোপন রাখতে বলে। এরপর বিভিন্ন স্থানে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে রাত কাটাত।

সম্প্রতি আরিফ যোগাযোগ স্থাপনে ব্যর্থ হয়ে তার সঙ্গে অতীতের সকল স্মৃতি অডিও ভিডিত্ত, শেয়ারইট, হোয়াটসআপ, ইমুসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যামে এলাকায় ছড়িয়ে দেয়। এ সংবাদ পেয়ে সালমার বাবা মা তাকে প্রহার করে বাড়ি থেকে বিতাড়িত করে। সালমা কোথাও কোন কুল কিনারা না দেখে রোববার সকালে আরিফের মুঠোফোনে ফোন দেয়। আরিফ তাঁকে তাদের বাড়িতে আসতে বলে। সালমা ওই কথায় বিশ্বাস রেখে স্ত্রীর অধিকারের দাবিতে আরিফের বাড়িতে বিষের বোতল নিয়ে অবস্থান নেয়। পর দিন গড়িয়ে সন্ধ্যায় স্থানীয় ৫নং ওয়ার্ড ইউপির সাধারন সদস্য নিজাম উদ্দিন ও খিলা বাজার পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক মুন্সী আসফাকুল ইসলাম সঙ্গীঁয় ফোর্স নিয়ে ঘটনার স্থলে উপস্থিত হন।

তারা সংশ্লিষ্ট ইউপির সদস্যের উপস্থিতিতে সালমার পিতার জিম্মায় তাকে সোপর্দ করে।

এদিকে আরিফের মা আয়েশা বেগম (৪৫) জানান, আমার ছেলে আরিফ গত দু’ সপ্তাহ ধরে বাড়িতে নেই।

সালমার স্বজনরা জানান, সে নাওড়া পঞ্চনগর আজিজুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় নবম শ্রেনী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছিলো। আমরা এ ঘটনার দৃষ্টান্তমুলক বিচার ও মেয়ের অধিকার চাই। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম পাটওয়ারী লিটন জানান, এ বিষয়ে আগামী মঙ্গলবার একটি বৈঠক রয়েছে।