সাম্প্রতিক

যশোর রোডের ৩৫৬ টি গাছ কাটার অনুমতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট

পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বারাসাত থেকে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের পেট্রাপোল পর্যন্ত যশোর রোডের দুই ধারে তাবুর মতো বিছিয়ে থাকা শতাব্দী প্রাচীন গাছ কাটার অনুমতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট। উন্নয়নের স্বার্থেই যশোর রোডের দুই ধারে থাকা ৩৫৬ টি গাছ কাটার অনুমতি দিয়েছে আদালত। তবে এক্ষেত্রে একটি শর্তও দেওয়া হয়েছে তা হল-একটি গাছ কাটার পরিবর্তে ওই অঞ্চলেই নতুন করে ওই প্রজাতিরই পাঁচটি চারা গাছ রোপণ করতে হবে।
শুক্রবার আদালতের তরফে এই নির্দেশ দেওয়া হয়। এদিন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য ও বিচারপতি অরিজিৎ ব্যানার্জির ডিভিশন বেঞ্চ এক আদেশে রাজ্য সরকারকে আগামী তিন মাস পরে কাজের অগ্রগতি নিয়ে একটি রিপোর্টও দিতে বলেছে।
তবে এদিন আদালতের তরফে গাছ কাটার অনুমতি দেওয়া হলেও আগামী তিন সপ্তাহের জন্য সেই রায়ের ওপরই এদিন স্থগিতাদেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। কারণ ইতিপূর্বেই গাছ বাঁচাও কমিটির তরফে দেশটির শীর্ষ আদালতে ক্যাভিয়েট ফাইল করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে মামলাকারীদের সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার রাস্তাও খোলা রয়েছে।
এই তিন সপ্তাহের মধ্যে গাছ না কাটার যথোপযুক্ত কারন ও যশোর রোড স¤প্রসারণের বিকল্প উপায় দর্শাতে না পারলে যশোর রোডের ৩৫৬ টি গাছ কাটার ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের কাছে আর কোনও বাধাই থাকবে না।
তবে আদালতের এই রায়ে ক্ষুব্ধ হয়েছেন পরিবেশপ্রেমীরা। গাছ বাঁচাও কমিটির সদস্য অনির্বাণ দাস ফোনে জানান ‘আমাদের যদিও শীর্ষ আদালতের যাওয়ার সুযোগ রয়েছে, তবে হাইকোর্টের আদেশে গাছ কাটার ক্ষেত্রে আর কোন নিষেধাজ্ঞা থাকল না বলেই মনে হচ্ছে।

 

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল প্রকাশ করা হবে না